আক্রমণাত্মক পাকিস্তান, হাত বাড়িয়ে গান্ধীগিরির নজির গড়লেন আকবরুদ্দিন

রূপসী বাংলা কলকাতা ডেস্ক: রাষ্ট্রসংঘে রুদ্ধদ্বার বৈঠকল তাবড় দেশের কূটনীতিকদের প্রশ্নবান। চিন-পাকিস্তানের যৌথ আক্রমণ। আর সেখানে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করে দিয়ে এসেছেন ভারতের প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরউদ্দিন। সেখানেই শেষ নয়। বৈঠক থেকে বেরিয়ে পাক সাংবাদিকদের প্রশ্নবাণ।

প্রশ্ন ছুটে এল পাকিস্তানের এক সাংবাদিকের কাছ থেকে। প্রশ্ন শুনেই ডায়াস ছেড়ে বেরিয়ে এলেন আকবরউদ্দিন। হাত বাড়িয়ে দিলেন সেই সাংবাদিকের দিকে। শুধু তাঁর দিকেই নয়, তিন পাক সাংবাদিকের সঙ্গে করমর্দন করলেন তিনি। রাতারাতি সেই ভিডিও ভাইরাল। সৌজন্যের নজির গড়ে হৃদয় জিতে নিলেন ভারতবাসীর।

তাঁকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, পাকিস্তানের সঙ্গে কবে আলোচনা শুরু করবেন? সাংবাদিকের সেই প্রশ্ন শুনে আকবরউদ্দিন বলেন, চলুন আপনাকে দিয়েই শুরু করি। আগে হাত মেলাই আপনার সঙ্গে। এই বলে তিনি পাকিস্তানের তিন সাংবাদিকের সঙ্গে একে করমর্দন করেন। এভাবেই তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন, ভারত বরাবরই শান্তি আলোচনায় অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছে, হাত বাড়িয়ে দিয়েছে, পাকিস্তানই অশান্তি ছড়িয়ে আলোচনার পরিবেশ বিষিয়ে তুলেছে।

উল্লেখ্য, রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে রুদ্ধদ্বার বৈঠক হলেও কাউকে পাশে পেল না পাকিস্তান। চিন ছাড়া পাকিস্তান এক ঘরে হয়ে গেল। পাকিস্তানের আবেদন সাড়া দিল না কেউই। আমেরিকা, রাশিয়া, ফ্রান্স, ব্রিটেন- সবাই মুখ ফিরিয়ে নিল পাকিস্তানের দিক থেকে। একমাত্র চিন পাকিস্তানের পাশে দাঁড়াল।

রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বাকি চার সদস্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ফ্রান্স ও ব্রিটেন এদিন ভারতেরই পাশে দাঁড়িয়েছে। চিনের দাবি মেনে রুদ্ধদ্বার বৈঠক বসলেও সেখানে কাশ্মীর নিয়ে কোনও আলোচনা নথিতে ঠাঁই পায়নি। কারণ কাশ্মীর ইস্যু দুই দেশের বিষয় বলে এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে।

বিশ্বকে কড়া বার্তা শুক্রবার রাষ্ট্রসংঘের বৈঠক থেকে গোটা বিশ্বকে ভারত কড়া বার্তা দেয়। পাকিস্তানকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে রাষ্ট্রসংঘে ভারতের প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরুদ্দিন বললেন, কাশ্মীর আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়, পাকিস্তান অযথা এর মধ্যে নাক গলাচ্ছে। ভারত কাশ্মীরের আইনব্যবস্থাকে দেশের অন্যান্য অংশের সঙ্গে মিলিয়ে দিয়েছে সরকার চালানোর সুবিধার্থে।

শুক্রবার রাষ্ট্রসংঘে এই রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়। চিন ও পাকিস্তানের যৌথ চিঠি গিয়েছিল রাষ্ট্রসংঘে৷ দুই দেশেরই দাবি কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার নিয়ে ভারতের ভূমিকা অনৈতিক৷ সেই বিষয়ে আলোচনা করুক রাষ্ট্রসংঘ৷ দাবি মেনে ১৯৬৫ সালের পর এই প্রথম রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ৷

এর আগে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বিধানসভার বিশেষ অধিবেশনে ইমরান খান বলেন, ‘ভারত পাক অধিকৃত কাশ্মীর আক্রমণ করলে পাকিস্তান তার জবাব দেবে৷ পাশাপাশি তিনি টুইট করে আরএসএস মতাদর্শকে ‘ভয়ঙ্কর’অ্যাখ্যা দিয়ে নাৎসীদের সঙ্গে তুলনা করেছেন এবং সেই জন্যই ৩৭০ ধারা বাতিল হয়েছে৷

ইমরান দাবি করেন , পাক সেনা জানে ভারত পরিকল্পনা করেছে আজাদ কাশ্মীরে আক্রমণ করার৷ তাঁর বক্তব্য, তারাও সিদ্ধান্ত নিয়েছে যদি ভারত কোন রকম চুক্তিভঙ্গ করে তাহলে তারা যুদ্ধ করে শেষ দেখে ছাড়বেন৷ তখন সারা দেশই পাক সেনার পিছনে থাকবে৷ মুসলিমরা আল্লা ছাড়া কারও কাছে মাথা নোয়ায় না৷ ভারতের তেমন কোনও প্রবণতা থাকলে মোদী উচিত শিক্ষাই পাবেন বলে জানিয়েছেন ইমরাণ৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *