প্রধান খবরবাংলাদেশ

ইটালিফেরত একজন মারা গেছেন

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ইটালিফেরত এক ব্যক্তি মারা গেছেন। রোববার রাতে শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি মারা যান।
 
তার বাড়ি শহরের জগন্নাথপুর এলাকায়। তিনি গত ২৮ ফেব্রুয়ারি ইটালি থেকে দেশে ফিরেছিলেন। এরপর তিনি হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা বা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির কারও সঙ্গে যোগাযোগ করেন নি।
 
রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তাকে তার স্বজনরা করোনার উপসর্গ নিয়ে শহরের লক্ষ্মীপুর এলাকার আবেদীন হাসপাতাল (প্রা.) নামে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে সরকারি আইসোলেশন সেন্টারে যেতে বলেন।
 
কিন্তু তার স্বজনরা তাকে সেখানে না নিয়ে শহরের কমলপুর এলাকার ডক্টরস চেম্বার নামের অপর একটি বেসরকারি হাসপাতালে নেন। সেখানে রাত ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয়।
 
এই বিষয়ে আবেদীন হাসপাতালের ব্যবস্থাপক মো. শাহজালাল জানান, রাত সাড়ে ১০টার দিকে প্রচণ্ড জ্বর, গলা ব্যাথা ইত্যাদি উপসর্গ নিয়ে ওই ব্যক্তি হাসপাতালে আসেন। তারা তখন তাকে সরকারি আইসোলেশন সেন্টারে যাওয়ার পরামর্শ দিয়ে ছেড়ে দেন।
 
এদিকে খবর পেয়ে রাতেই উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বুলবুল আহমেদের নেতৃত্বে একটি মেডিকেল টিম ওই ব্যক্তির বাড়ি যায় এবং আশেপাশের ১০ বাড়ি পর্যন্ত পুলিশি নজরদারীতে নেন।
 
সোমবার সকালে ঢাকা থেকে আইইডিসিআর এর প্রতিনিধিনিরা ভৈরবে এসে মৃতের নমুনা সংগ্রহ করছেন।
 
এইসব তথ্য জানিয়েছেন উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বুলবুল আহমেদ।
 
জেলার সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান বলেন, নিহত ওই ব্যক্তি ইটালি থেকে দেশে ফেরার পর কোয়ারেন্টাইনে না থেকে আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়িয়েছেন।
 
এখন তার মৃত্যুর পর স্থানীয়রা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন।
 
তিনি জানান, ভৈরব শহরের লক্ষ্মীপুর এলাকার আবেদীন (প্রা.) ও কমলপুর এলাকার ডক্টরস চেম্বার নামে দুটি বেসরকারি হাসপাতাল লকডাউনের (অবরুদ্ধ) ঘোষণা দিয়েছে উপজেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি।
 
এছাড়া উপজেলার জগন্নাথপুর এলাকার দশটি বাড়ি নজরদারিতে নিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।
 
 
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension