আন্তর্জাতিকপ্রধান খবরযুক্তরাষ্ট্র

গ্রেটা থানবার্গের দেখা করতে আগ্রহী ট্রাম্প

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ব্যবস্থার দাবিতে ২০১৮ সালে প্রতি শুক্রবার সুইডিশ পার্লামেন্টের বাইরে অবস্থান নেওয়া এবং বিশ্বজুড়ে সাড়া জাড়ানো জলবায়ু কর্মী কিশোরী স্কুলছাত্রী গ্রেটা থানবার্গের সঙ্গে দেখা করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সুইজারল্যান্ডের দাভোসে চলমান বিশ্ব অর্থনৈতিক সম্মেলনে অংশ নিয়ে একথা জানান ট্রাম্প।
 
গ্রেটা থানবার্গ। তার এই অবস্থানের মধ্য দিয়ে বিশ্বজুড়ে বেগবান হয় জলবায়ু আন্দোলন। তার প্রতি সমর্থন জানিয়ে দুনিয়াজুড়ে এই আন্দোলনে শামিল হন লাখ লাখ মানুষ।
 
বিশ্বজুড়ে আলোচিত এই জলবায়ু কর্মীর ব্যাপারে ট্রাম্প বলেন, ‘আমি তার সাথে দেখা করতে পারলে খুবই খুশি হবো। তবে এর আগে গ্রেটা থানবার্গকে বিশ্বখ্যাত টাইম ম্যাগাজিনের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ নির্বাচিত করাকে হাস্যকর হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
 
ট্রাম্পের সম্পর্কে গ্রেটা থানবার্গ বলেছেন, বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলা মানে সময় নষ্ট করা। ফলে তার পেছনে আমি সময় নষ্ট করব না।
 
২০১৫ সালে বৈশ্বিক উষ্ণতা সংক্রান্ত প্যারিস চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে নেন ট্রাম্প। জলবায়ু পরিবর্তনকে ‘ভুয়া’ বলে অভিহিত করেছেন ট্রাম্প। তবে দাভোসে এমন প্রশ্ন করা হলে তা অস্বীকার করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, আমি কখনই বলি নি যে এটা ভুয়া। তবে জলবায়ুকর্মীরা একে অবাস্তবভাবে তুলে ধরেন।
 
বুধবার বিবিসি গ্রেটাকে জিজ্ঞাসা করেছিলো, ট্রাম্পের সঙ্গে কথা হলে কী বলবেন? জবাবে তিনি বলেন, সত্যিই আমি মনে করি না যে, আমাকে কিছু বলতে হবে। কেননা স্পষ্টতই তিনি বিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞদের কথা শুনছেন না। তাহলে আমার কথা তিনি কেন শুনবেন? ফলে আমি হয়ত কিছুই বলব না। নিজের সময় নষ্ট করব না।
 
Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension