আন্তর্জাতিকগণমাধ্যমনিউ ইয়র্কপ্রধান খবরপ্রবাসবাংলাদেশযুক্তরাষ্ট্র

চতুর্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে রূপসী বাংলা পত্রিকা

আজ ১০ অক্টোবর। রূপসী বাংলা পত্রিকার চতুর্থ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। আজ থেকে চার বছর আগে এমনি এক চমৎকার দিনে নিউ ইয়র্ক থেকে সম্পাদক শাহ্‌ জে চৌধুরীর কাঁধে ভর করে খুব নড়বড়ে পায়ে হাঁটতে শুরু করেছিল রূপসী বাংলা পত্রিকা।

ভিন্ন একটি দেশে, সে দেশটির ভিন্ন ভাষায় পত্রিকা প্রকাশ করা খুবই দুরূহ একটি দায়িত্ব। আর সেটিকে চালিয়ে নেয়া নেয়া আরও কঠিন একটি কাজ। কিন্তু বদ্ধপরিকর সম্পাদক শাহ্‌ জে চৌধুরী হতাশ হলেন না। তিনি আমেরিকায় বাংলাদেশের অভিবাসীদের সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন সংস্কৃতির মানুষদের কাছেও বাংলার রূপ, রস, গন্ধ, সৌন্দর্য, সংস্কৃতি, স্বাদ, স্বাদ এবং রঙ ইত্যাদি পৌঁছে দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হলেন। তার সঙ্গে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়ে আত্মপ্রকাশ করল রূপসী বাংলা পত্রিকা।

মুক্তিযুদ্ধের সুমহান চেতনাকে সুদূর সর্বস্তরে ছড়িয়ে দিয়ে একটি সমৃদ্ধ আধুনিক দেশ জাতি গড়ার স্বপ্নে যাত্রা শুরু করে রূপসী বাংলা পত্রিকা। শুরু হয় পথচলা। এরপর অনেক চড়াই উৎরাই পেরিয়ে প্রতিনিয়ত অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে সংগ্রাম করতে করতে পাঠক প্রিয়তায় রূপসী বাংলা পত্রিকা একটু একটু করে পরিণত হয়ে উঠেছে। চার বছর বিরতিহীন পথ চলায় পৌঁছেছে আজকের অবস্থানে। পাঠকের ভালোবাসাই রূপসী বাংলা পত্রিকার আজকের অবস্থানের মূলে। পাঠকের মতামতই রূপসী বাংলা পত্রিকার প্রেরণা।

আমেরিকায় বাংলাদেশের অভিবাসীদের সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন সংস্কৃতির মানুষদের কাছেও আপন সংস্কৃতি পৌঁছে দেয়ার যে প্রতিশ্রুতি আর স্বপ্ন নিয়ে সম্পাদক শাহ্‌ জে চৌধুরী ৪ বছর আগে যাত্রা শুরু করেছিলেন, প্রতিশ্রুতি পূরণ হলেও স্বপ্ন এখনও অনেকটাই বাকি।

৪ বছর আগে আমেরিকার নিউ ইয়র্ক থেকে যাত্রা শুরু করে রূপসী বাংলা এখন বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা অবধি পৌঁছেছে। আমেরিকার সকল দায়িত্ব সম্পাদক নিজেই পালন করলেও সেখানে থেকে বাংলাদেশের কাজ দেখাশোনা করা তাঁর পক্ষে সম্ভব নয়। সেকারণে সেখানের দায়িত্বটি অর্পণ করেছেন লেখক ও সাংবাদিক মুবিন খানের কাছে। মুবিন খান  বাংলাদেশে রূপসী বাংলা ঢাকা কার্যালয়ে নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

শাহ্‌ জে চৌধুরীর দেখা স্বপ্ন নিয়ে পথ হাঁটছে রূপসী বাংলা। সে স্বপ্ন বাস্তবায়িত হচ্ছে একটু একটু করে। অগণিত পাঠকের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে নিরলস এগিয়ে চলেছে। পাঠকরাই এ অগ্রযাত্রায় শক্তি ও সাহস যুগিয়েছেন।

আমেরিকার প্রবাসী বাঙালি, বাংলাদেশ ও জনগণের স্বার্থে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে রূপসী বাংলা পত্রিকা। এবং আগামীতেও এ ভূমিকাতেই বলিষ্ঠ থাকার প্রতিশ্রুতিতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা হোক রূপসী বাংলা পত্রিকার পথচলার পাথেয়। বস্তুনিষ্ঠ সত্য সংবাদ পরিবেশনায় রূপসী বাংলা পত্রিকা এখন যেভাবে এগিয়ে রয়েছে, তেমনিই থাকবে আসন্ন দিনগুলোতেও। দেশ ও জাতির কল্যাণে সাংবাদিকরা এগিয়ে আসবেন। সত্যের সংবাদে নির্ভীক থাকায় রূপসী বাংলা পত্রিকা আমেরিকা থেকে বাংলাদেশ অবধি আজ জনপ্রিয় ও পাঠকপ্রিয় পত্রিকা হিসেবে বিবেচিত।

আমরা স্বাধীন, নিরপেক্ষ, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতা করব। আমরা কোনও দলের মুখপত্র হবো না, জনগণের পক্ষে কোনও সত্য উচ্চারণে আমরা শঙ্কিত হব না। আমরা পেশাদারি দক্ষতা ও উৎকর্ষ অর্জনে সবসময় সচেষ্ট থাকব। আমরা পরিবর্তনের সহযোগী হবো। আমরা গণতন্ত্র আর মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের মূল্যবোধকে ধারণ করব, নারী-শিশুর অধিকার, আদিবাসী ও সংখ্যালঘু অধিকারের পক্ষে জোরালো ভূমিকা রাখব।

সেসব লক্ষ্যেই আমরা অবিচল আমাদের পথ ধরে এগিয়ে চলেছি।

সুপ্রিয় পাঠক, রূপসী বাংলা পত্রিকা পড়ুন, রূপসী বাংলা পত্রিকায় লিখুন। নিয়মিত লেখা পাঠান। আমরা আপনার প্রতিটি মতামত গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করব।

রূপসী বাংলা পত্রিকার চতুর্থ বছর পূর্তি ও পঞ্চম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষ্যে সকল পাঠক-দর্শক, শুভানুধ্যায়ী, বিজ্ঞাপন দাতা, সকল সাংবাদিক ও কলাকুশলী এবং সব জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি, ওয়েবসাইট ডেভেলপার ও ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের সকলকে আন্তরিক শুভেচ্ছা।❐

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension