টাইম ম্যাগাজিনের ২০১৯ এর ‘পারসন অফ দ্য ইয়ার’ হলেন ‘গ্রেটা থানবার্গ’

১৯২৭ সাল থেকে শুরু হওয়া টাইম ম্যাগাজিনের ‘পারসন অফ দ্য ইয়ার’ নির্বাচনের ইতিহাসে এবারই ১৬ বছর বয়সী কেউ নির্বাচিত হলো। সুইডেনের স্কুলছাত্রী গ্রেটা থানবার্গ জলবায়ু পরিবর্তন এবং প্রাণ ও প্রকৃতি ধ্বংসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিশ্বব্যাপী আন্দোলন সৃষ্টি করে এবার ২০১৯ সালের এই সম্মাননা পেলো।

মাত্র ১৫ বছর বয়সে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় অবিলম্বে কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহণের জন্য আন্দোলন শুরু করেন। ২০১৮ সালের আগস্ট মাসে স্কুল বাদ দিয়ে টানা তিন সপ্তাহ সুইডিশ পার্লামেন্টের সামনে বসে থাকেন গ্রেটা। এর পেছনে মূল উদ্দেশ্য ছিল জলবায়ু সংকটের বিরুদ্ধে কেন যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না, সেজন্য প্রতিবাদ। তিনি তার কর্মকাণ্ডের কথা ইনস্টাগ্রাম ও টুইটারে পোস্ট করেন, এবং তখন থেকেই ক্রমান্বয়ে জনমত তৈরি করতে থাকেন।

এরপর, সেপ্টেম্বর মাসে তিনি ঘোষণা দেন প্রতি শুক্রবার তিনি সুইডিশ পার্লামেন্টের সামনে দাঁড়িয়ে থাকবেন, যতদিন পর্যন্ত না তারা তাপমাত্রা বৃদ্ধির পরিমাণ দুই ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে রাখার ব্যাপার অঙ্গীকার দেয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে #FridaysForFuture ট্রেন্ডের মাধ্যমে স্কুলগুলোতে বিক্ষোভের আয়োজন করেছেন গ্রেটা। যেটি প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হয়েছে ১৫ মার্চ। এদিন তার ডাকে সাড়া দিয়ে জার্মানি, বেলজিয়াম, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, জাপানসহ ১০৫টি দেশের ১,৬৫৯টি স্থানে শিক্ষার্থীরা জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবিতে বিক্ষোভ ও মিছিল করেছে।

গ্রেটাকে টাইমের পারসন অফ দ্য ইয়ার ঘোষণার সময় তিনি স্পেনের মাদ্রিদে অবস্থান করছিলেন। সেখানে গত ২ ডিসেম্বর থেকে জাতিসংঘ আয়োজিত জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক সম্মেলন চলছে। যা আগামী ১৩ ডিসেম্বর শেষ হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *