যুক্তরাষ্ট্র

ট্রাম্প জাতিকে বিভক্ত করেছেন, সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রীর অভিযোগ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে জাতিকে বিভক্ত করার অভিযোগ তুলেছেন তারই সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস। শুধু তাই নয়, ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগও তুলেছেন ম্যাটিস। মঙ্গলবার দ্য আটলান্টিকে প্রকাশিত একটি লেখায় এভাবেই ট্রাম্পের প্রতি ক্ষোভ ঝেড়েছেন সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী। বিবিসির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ট্রাম্প প্রশাসনের প্রথম প্রতিরক্ষামন্ত্রী ছিলেন ম্যাটিস। তবে সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহারের প্রশ্নে দ্বিমত পোষণ করে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি। পাল্টা চিঠিতে তারিখ এগিয়ে দিয়ে ম্যাটিসকে বহিষ্কার করেন ট্রাম্প। এরপর থেকে চুপচাপই ছিলেন ম্যাটিস। তবে জর্জ ফ্লয়েড হত্যাকাণ্ডের পর ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভ দমনে ট্রাম্পের পদক্ষেপ নিয়ে মুখ খুললেন তিনি।

দ্য আটলান্টিকে ম্যাটিস লিখেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করার চেষ্টা না করে উল্টো বিভক্তি সৃষ্টি করছেন। আমার জীবনে এমন প্রেসিডেন্ট দেখিনি।’ এমন পরিস্থিতি তিন বছর ধরে ট্রাম্পের ‘অপরিণত নেতৃত্বের’ ফল বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

পুলিশের হাতে ২৫ মে জর্জ ফ্লয়েড খুন হওয়ার পর থেকে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভে বেসামাল হয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সবগুলো শহর। এমন পরিস্থিতিতে বিক্ষোভ দমনে সেনা অভিযানের হুমকি দিয়েছেন ট্রাম্প। তবে সাবেক সেনা কর্মকর্তা ম্যাটিস লিখেছেন, ‘আমি স্বপ্নেও ভাবতে পারি না যে, চরম খারাপ পরিস্থিতিতেও নিজ দেশের নাগরিকদের সাংবিধানিক অধিকার হরণের নির্দেশ দেওয়া হবে সেনাবাহিনীকে।’

চলমান বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ প্রসঙ্গে ম্যাটিস লিখেছেন, ‘লাখ লাখ মানুষের এই বিক্ষোভ আমাদের জাতি হিসেবে মূল্যবোধ নিয়ে বেঁচে থাকার কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে। অল্প সংখ্যক আইন ভঙ্গকারীর জন্য আমরা লক্ষ্যচ্যুত হব না।’

তবে ম্যাটিসের এসব মন্তব্যে বেজায় চটেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। ক্ষোভ প্রকাশ করে পরপর কয়েকটি টুইট করেছেন প্রেসিডেন্ট। ম্যাটিস সম্পর্কে তিনি লিখেছেন, ‘আমি তার নেতৃত্বের ধরন পছন্দ করতাম না। আরও অনেকেই করতেন না। ভালো হয়েছে, তিনি দায়িত্ব ছেড়ে চলে গেছেন।’ ⛘

 

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension