থেরেসা মের পর কে?

রূপসী বাংলা আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ব্রিটেনে ব্রেক্সিট ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন থেরেসা মে। একই সঙ্গে তিনি দলীয় প্রধানের পদ থেকেও পদত্যাগের কথা জনিয়েছেন। এই ঘোষণার পর যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির প্রধানের পদ নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়ে গেছে। এরই মধ্যে চারজন প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নামার ঘোষণা দিয়েছেন।

ব্রেক্সিট বা ইউরোপের সঙ্গে সম্পর্কোচ্ছেদের প্রক্রিয়া নিয়ে একটি চুক্তিতে উপনীত হতে ব্যর্থ মে সব দায় নিজের কাঁধে নিয়ে শুক্রবার কান্না ভেজা চোখে পদত্যাগের ঘোষণা দেন। দলীয় প্রধানের পদ থেকে সরে যাওয়ার পর তাকে প্রধানমন্ত্রিত্বও ছাড়তে হবে। আগামী ৭ জুন তিনি পদত্যাগ করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

বিবিসি জানায়, সেক্ষেত্রে জুলাইয়ের মধ্যেই নতুন নেতা এবং প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন করবে কনজারভেটিভ পার্টি। যতদিন দলীয় প্রধান নির্বাচিত না হবে ততদিন প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করবেন মে।

থেরেসা মে যে সপ্তাহে পদত্যাগ করবেন ওই সপ্তাহেই নতুন দলীয় প্রধান নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হবে। এ বিষয়ে টোরি ব্যাকবেঞ্চ ১৯২২ কমিটির প্রধান গ্রাহাম ব্রাডির সঙ্গে একমত হয়েছেন মে।

এখন পর্যন্ত যে চারজন প্রার্থী হওয়ার কথা জানিয়েছেন তারা হলেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট, আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী ররি স্টুয়াট, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন এবং সাবেক শ্রম বিষয়ক মন্ত্রী এস্থার ম্যাকভি।

আরো অন্তত এক ডজন নেতা দলীয় প্রধান হওয়ার দৌড়ে নামার বিষয়ে ভাবছেন বলে জানান বিবিসি। যাদের একজন গ্রাহাম ব্রাডি, যিনি টোরি ব্যাকবেঞ্চ ১৯২২ কমিটি প্রধানের পদ ছাড়ার কথা আগেই ঘোষণা দিয়েছেন।

তবে এই দৌড়ে নামবেন না বলে স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিয়েছেন বর্তমান শ্রম বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাম্বার রাড। তবে তিনি বরিস জনসনকে সমর্থন দেয়ার কথা জানিয়েছেন।

সূত্র: বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *