বিনোদন

নির্বাচনী আমেজ নেই এফডিসিতে

রূপসী বাংলা বিনোদন ডেস্ক: আসছে ২৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সমিতির নির্বাচন। কিন্তু গেল বারের মত এবার সেই নির্বাচনের আমেজটা নেই। সাধারণত শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে ঘিরে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএফডিসি) সরগরম হয়ে ওঠে। পোস্টারে ছেয়ে যায় এফডিসি। যার যার মতো প্রার্থীরা নির্বাচনের প্রচারণা চালাতে থাকে। এবার সেসব কম দেখা যাচ্ছে।

নির্বাচনের ১৫ দিন বাকি থাকলেও এবারের নির্বাচনে কোন প্রাণ নেই। এখন পর্যন্ত নির্বাচনে গঠিত হয়েছে মাত্র একটি পূর্ণ প্যানেল। নির্বাচনের সভাপতি পদ ছাড়া অন্য পদগুলোতে তেমন প্রতিদ্বন্দ্বিতার তেমন চমক নেই। প্রতিপক্ষ না থাকলে নির্বাচন জমে না। বলা যায় অনেকটা একতরফা নির্বাচন হতে যাচ্ছে এবার।

১৮ পদের জন্য এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন মোট ২৭ জন প্রার্থী। সভাপতি পদে লড়বেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী ও মিশা সওদাগর। সাধার সম্পাদক পদে লড়বেন জায়েদ খান ও ইলিয়াস কোবরা। একমাত্র সভাপতি পদেই শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখা যেতে পারে বলে সবার ধারণা। অন্যদিকে গেল মেয়াদে একই পদে দায়িত্ব পালন করে শিল্পী বান্ধব বেশ কিছু কাজ করায় শিল্পীদের কাছে জনপ্রিয়তায় এগিয়ে আছেন জায়েদ খান।

মিশা সওদাগর-জায়েদ খান প্যানেল থেকে সহ-সভাপতি পদে লড়ছেন মাসুম পারভেজ রুবেল, মনোয়ার হোসেন ডিপজল। একই প্যানেলে সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে আরমান, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে মামুনুন হাসান ইমন, দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে জ্যাকি আলমগীর, কোষাধ্যক্ষ পদে ফরহাদ, সাংস্কৃতি ও ক্রিড়া সম্পাদক পদে জাকির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে সুব্রত লড়াই করছেন।

মিশা-জায়েদ প্যানেল কার্য নির্বাহী সদস্য পদে আছেন অঞ্জনা, রোজিনা, অরুণা বিশ্বাস, আলি রাজ, বাপ্পারাজ, আফজাল শরীফ, মারুফ, আসিফ ইকবাল, আলেক জান্ডার বো, জেসমিন, জয় চৌধুরী।

সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করছেন সাংকোপাঞ্জা, সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে নির্বাচন করছেন ডন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে ইমনের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন নূর মোহাম্মদ খালেদ আহমেদ। এছাড়া কার্য নির্বাহী সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন শামীম খান, মারুফ আকিব, রোঞ্জিতা, নাসরিন।

সমিতির ২১টি পদের মধ্যে নির্বাচন হবে ১৮টি পদের। বিপরীতে প্রার্থী না থাকায় কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী ছাড়া আগেই তিন প্রার্থীকে জয়ী ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। তিন পদে নির্বাচিত হয়েছেন সুব্রত (সাংগঠনিক সম্পাদক), জ্যাকি আলমগীর (দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক) এবং ফরহাদ (কোষাধ্যক্ষ)।

মিশা-জায়েদ প্যানেল থেকে ফেসবুকে পোস্টার প্রকাশের মাধ্যমে প্রচারনা চালানো হচ্ছে আসন্ন নির্বাচন নিয়ে। কিন্তু এখন পর্যন্ত স্বতন্ত্র হিসেবে অংশ নিয়েও প্রচারণায় পোস্টার দেখা যায়নি মৌসুমীর। প্রথম দিকে মৌসুমীকে সভাপতি করে একটি প্যানেল গঠিত হয়েছিল। সেখানে সাধারন সম্পাদক পদে ছিলেন ডিএ তায়েব। এছাড়াও সেই প্যানেলে রিয়াজ, ফেরদৌস, পপি, সাইমনসহ আরও অনেকেই ছিল। কিন্তু কোন এক অদৃশ্য কারণে তারা সবাই সরে যান এবং মৌসুমী স্বতন্ত্র পদে দাঁড়ান।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension