পুলিশে নিয়ন্ত্রণ নেই মমতার, পদত্যাগ করা উচিত: মুকুল রায়

রূপসী বাংলা কলকাতা ডেস্ক: রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ অথচ তাঁর পুলিশই কথা শুনছে না রাজ্যের মন্ত্রীদের৷ এপ্রসঙ্গে বিজেপি নেতা মুকুল রায় মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছেন৷

সোমবার নবান্নে ছিল রাজ্য প্রশাসনের পর্যালোচনা বৈঠক৷ সূত্রের খবর সেখানেই রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার জন্য দায়ী করা হয় বিজেপিকে৷ একই সঙ্গে গেরুয়া দলের কার্যকলাপ বন্ধে পুলিশের একাংশ কোনও উদ্যোগই নিচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন মমতা ঘনিষ্ঠ দুই মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ও জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক৷

এপ্রসঙ্গে দলের রাজ্য দফতরের বসে বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেন, ‘‘রাজ্যের পুলিশ মন্ত্রীর কথাই কানে তুলছে না পুলিশ৷ নিজেই অভিযোগ করছেন মমতা৷ মন্ত্রীরাও নাকি একই অভিযোগ করেছেন৷ তাহলে তো পরিষ্কার পুলিশ প্রশাসনের উপর থেকে ওঁর নিয়ন্ত্রণ চলে গিয়েছে৷’’

এরপরই রাজ্য বিজেপির চাণক্য মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেন৷ বলেন, ‘‘এই পরিস্থিতিতে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা পুলিশমন্ত্রীর পদত্যাগ করছেন না কেন? ব্যার্থতার দায় তো ওঁর৷ অবিলম্বে পদত্যাগ করা উচিত৷’’ গোটা রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা ছড়ানোর জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকেই দায়ী করেন মুকুল রায়৷

প্রসঙ্গত, পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী সোমবার পর্যালোচনা বৈঠকে বলেন, ‘‘পুলিশের ভূমিকা ঠিক নয়৷ একটা এফআইআর করতে গেলে বারবার বলতে হচ্ছে। বিশেষ করে নিচু তলার কিছু পুলিশ হয় ভয় পাচ্ছেন, নইলে ইচ্ছা করে কথা শুনছেন না৷’’ সন্দেশখালি, নিমতার কথা তুলে ধরে একই কথা বলেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকও৷ তিনি অভিযোগ করেন, ‘‘ বলতে বাধ্য হচ্ছি, পুলিশ কোথাও ভয় পাচ্ছে ব্যবস্থা নিতে। এত দ্বিধা কেন? ভয়ই-বা কীসের’’

বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ জানা গিয়েছে, মন্ত্রিসভায় তাঁর অতি ভরসার দুই মন্ত্রীর কথা শুনে অসন্তোষ চেপে রাখেননি মুখ্যমন্ত্রী তথা পুলিশমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সভায় উপস্থিত রাজ্য পুলিশের ডিজিকে আরও কড়া হাতে পরিস্থিতি মোকাবিলার পরামর্শ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়৷ ডিজি বীরেন্দ্রকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, “আপনি এত ভদ্র মানুষ হলে চলবে না৷ কটোর হতে হবে৷”

বৈঠকে উপস্থিত বিভিন্ন জেলার পুলিশ সুপার ও অন্যসব পুলিশ কর্তাদের উদ্দেশ্যেই কড়া কথা বলেন তিনি৷ জানা গিয়েছে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, “আপনারা নিরপেক্ষতা বজায় রাখুন৷ আমাকে চটাবেন না। বাংলায় রাজনৈতিক স্বার্থে বিজেপি অশান্তি করবে, আর আপনারা দায় এড়িয়ে থাকবেন তা হতে পারে না৷ রাজ্যে শান্তি বজায় রাখা দায়িত্ব পুলিশের ভুলে যাবেন না৷’’

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, রাজ্যে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়ার প্রবণতা রয়েছে৷ রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসাকেও ইস্যু করতে চাইছে গেরুয়া শিবির৷ দিল্লির সরকারের তরফেও রাজ্য প্রশাসনের উপর চাপ বাড়ানো হয়েছে৷ সেখানেই থেমে যাওয়া নয়৷ এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিভিন্ন ইস্যুতে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের পদত্যাগ দাবি করেছেন৷ একই কায়দায় একদা তৃণমূল নেত্রী ঘনিষ্ট মুকুলও এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতার পদত্যাগের দাবি করলেন৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *