নিউ ইয়র্কপ্রবাসবাংলাদেশ

ফাহিম হত্যার কথা হ্যাসপিল এখনও খুনের কথা স্বীকার করেন নি

রাইড শেয়ারিং অ্যাপ পাঠাওয়ের সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং সাবেক বিনিয়োগকারী ফাহিম সালেহ হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত টেরেস ডেভোন হ্যাসপিল এখনও খুনের কথা স্বীকার করেন নি বলে জানিয়েছে সিএনএন। তিনি বরং ‘সেকেন্ড ডিগ্রি মার্ডারের’ অভিযোগ নিয়ে আপত্তি তুলেছেন।

২১ বছর বয়সী হ্যাসপিলের আইনজীবীরা রবিবার বিবৃতি দিয়ে বলেন, ‘সত্য খুঁজে বের করার একদম প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছি আমরা। এই মামলার জীবনকাল দীর্ঘ এবং জটিল হওয়ার বার্তা দিচ্ছে। মি. হ্যাসপিলের আইনজীবী হিসেবে আমরা সবাইকে উদার মানসিকতা রাখার আহ্বান জানাচ্ছি।’

আইনজীবীরা এমন কথা বললেও পুলিশের ধারণা, ফাহিমের এই ব্যক্তিগত সহকারী হ্যাসপিলই তাকে খুন করেছেন। ইতোমধ্যে একটি ভিডিওতে তাকে বৈদ্যুতিক করাতও কিনতে দেখা গেছে, যা দিয়ে তিনি নিজের সাবেক বসকে খুন করেন।

ফাহিমের ময়নাতদন্ত শেষে চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, তার গলায় এবং ঘাড়ে পাঁচটি কোপ দিয়েছে ঘাতক।

নিউ ইয়র্কের ম্যানহাটনের লোয়ার ইস্ট সাইডে নিজের বিলাসবহুল বাসায় স্থানীয় সময় মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে খুন হন ফাহিম।

হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার হওয়া হাসপিলকে ‘সেকেন্ডে ডিগ্রি মার্ডারে’ অভিযুক্ত করা হয়েছে।

পুলিশ আগে জানিয়েছিল এটি পূর্বপরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। কিন্তু এখন অভিযোগের ধরণ দেখে বোঝা যাচ্ছে বেশী আগে পরিকল্পনা করে এই হত্যাকাণ্ড ঘটায় নি ঘাতক। ‘ইচ্ছাকৃত এবং প্ররোচিত; কিন্তু পরিকল্পিত নয়’- এমন হত্যাকাণ্ডকে সাধারণত সেকেন্ড ডিগ্রি মার্ডার বলা হয়।

এখন পর্যন্ত যেসব তথ্য পাওয়া গেছে তা থেকে বোঝা যায় ২১ বছর বয়সী হ্যাসপিল রীতিমতো প্রতারক চরিত্রের ছেলে। তিনি ফাহিমের ১ লাখ ডলার চুরি করেছেন বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম জানা গেছে।

কিন্তু ফাহিম তার কাছে আরও অনেক ডলার পেতেন। ❑

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension