বাইডেন অভিষেকের দিনই ডজনখানেক নির্বাহী আদেশে সই করবেন

রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের যেসব নীতি বদলে ফেলা হয়েছিল, সেগুলো আবার আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে দায়িত্ব নেওয়ার প্রথম দিন থেকে কাজ শুরু করবেন বাইডেন।

তিনি আবাসন ও শিক্ষা ঋণ, জলবায়ু পরিবর্তন আর অভিবাসনের মতো ডজনখানেক বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের নীতি পরিবর্তনের জন্য নির্বাহী আদেশে সই করবেন অভিষেকের দিনই।

ডেমোক্র্যাটদলীয় প্রেসিডেন্ট বাইডেনের হবু চিফ অব স্টাফ রন ক্লেইন শনিবার এক মেমোতে সেসব নির্বাহী আদেশের বিষয়ে একটি ধারণা দিয়েছেন সাংবাদিকদের।

২০ জানুয়ারি বাইডেনের অভিষেকের মধ্য দিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চার বছরের মেয়াদ শেষ হচ্ছে।

ট্রাম্পের সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের যেসব নীতি বদলে ফেলা হয়েছিল, সেগুলো আবার আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতি করোনাভাইরাস মহামারী শুরুর আগে থেকেই দিয়ে আসছিলেন বাইডেন।

প্যারিস জলবায়ু চুক্তি থেকে বেরিয়ে এসেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই চুক্তিতে বাইডেন আগ্রহ দেখাচ্ছেন। বিশ্বের বেশ কয়েকটি মুসলিম দেশের নেতা ও জনগণের ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করবেন বাইডেন। যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করবে বাইডেন প্রশাসন। এগুলো আগে থেকেই ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন নতুন প্রেসিডেন্ট বাইডেন।

চার বছর আগে প্রেসিডেন্ট হিসেবে অভিষিক্ত হওয়ার কয়েক সপ্তাহের মধ্যে অভিবাসনের নিয়ম বদলাতে তৎপর হন ট্রাম্প। সেই সময় সাতটি মুসলিম প্রধান দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকার পথ বন্ধ হয়ে যায়। বর্তমানে ১৩ দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র সফরে কড়াকড়ি চলছে।

বাইডেন দায়িত্বের প্রথম দিনই সাত মুসলিম দেশের জনগণের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে নতুন নির্বাহী আদেশ দেবেন বলে জানিয়েছেন রন ক্লেইন।

পাশাপাশি শিক্ষা ঋণের লোনের কিস্তি দেওয়ার বাধ্যবাধকতা স্থগিত করে এর আগে যে আদেশ হয়েছিল, তার মেয়াদ বাড়ানোর ঘোষণা আসবে বাইডেনের অভিষেকের দিনই।

প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী, এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে ভ্রমণ এবং ফেডারেল সরকারের সব প্রতিষ্ঠানে মাস্ক বাধ্যতামূলক করবেন বাইডেন।

বাইডেনের হবু চিফ অব স্টাফ ক্লেইন বলেছেন, বাইডেনের প্রথম দিনের প্রতিশ্রুতির একটি বড় অংশের বাস্তবায়ন শুরু হয়ে যাবে অভিষেকের পরের ৯ দিনের মধ্যে।

ক্লেইন আরও বলেন, নতুন প্রেসিডেন্ট বাইডেন দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন জাতির এক সংকটজনক মুহূর্তে। নির্বাচনী প্রচারের সময়ই তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, এসব সমস্যা আমলে নিয়ে দেশকে গড়ে তুলবেন আরও ভালোভাবে। সেটিরই প্রতিফলন দেখবেন মার্কিনিরা।❐

Exit mobile version