বিজেপিকে ভোট দেওয়ায় একঘরে অসমের জাফর আলি

রূপসী বাংলা কলকাতা ডেস্ক: তাঁর অপরাধ সে নিজের ভটাধিকার প্রয়োগ করেছে বিজেপির পক্ষে। বিষয়টি তিনি গোপনও করেননি। আর সেটাই যেন বড় অভিশাপ হয়ে এল তাঁর জীবনে।

বিজেপিকে ভোট দেওয়ার কারণে তাঁকে একঘরে করে দিল পড়শিরা। কারণ মুসলিম হয়ে বিজেপিকে ভোট দিয়ে তিনি ঘোরতর অপরাধ করে ফেলেছেন। সেই কারণে নমাজ পড়া তো অনেক দূরের কথা মসজিদে প্রবেশও নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর পূর্ব ভারতের রাজ্য অসমে। আলচিত ব্যক্তির নাম জাফর আলি। তিনি অসমের দরং জেলার খারুপেটিয়ার বাসিন্দা। গত ১৮ তারিখে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের দ্বিতীয় দফার ভোট গ্রহণের দিনে নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছিলেন জাফর আলি।

ভোটের পরের দিন ছিল পবিত্র জুম্মাবার। ইসলাম ধর্মের সেই পবিত্র দিনে স্থানিয় মসজিদে নমাজ পড়তে গিয়েছিলেন জাফর আলি। উপাসনা শেষ করে মসজিদ চত্বরেই চলছিল পরিচিত লোকেদের সঙ্গে আড্ডা। সেই আড্ডায় উঠে এসেছিল সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের কথা। সেই সময়েই তিনি প্রকাশ্যে জানিয়ে দেন যে তাঁর মহামূল্যবান ভোট তিনি পদ্মের প্রতীকে দিয়েছেন।

আর তাতেই ঘটেছে বিপত্তি। মুসলিম হয়ে বিজেপিকে ভোট দেওয়ায় জাফর আলির উপরে বেজায় চটে যায় কট্টর মুসলিম মৌলবাদীরা। সেই সময়েই মসজিদ থেকে বের করে দেওয়া হয় জাফর আলিকে। একই সঙ্গে জানিয়ে দেওয়া হ্য যে তাঁকে আর মসজিদে ঢুকতে দেওয়া হবে না। তিনি যেন ভবিষ্যতে আর মসজিদমুখো হওয়ার কথা না ভাবেন। এরপরে একাধিকবার মসজিদে যাওয়ার চেষ্টা করলেও স্ফল হতে পারেননি বিজেপি সমর্থক জাফর আলি।

শুধু মসজিদের মধ্যেই শেষ হয়ে যায়নি প্রতিকূলতা। এলাকাতেও তাঁকে পোহাতে হচ্ছে নানাবিধ বিড়ম্বনা। অনেকেই জাফর আলির সঙ্গে মেলামেশা করা বন্ধ করে দিয়েছেন, অনেকে আবার সেই কারণও জানিয়ে দিয়েছেন। নিজের এলাকাতেই একঘরে হয়ে গিয়েছেন জাফর। কেবলমাত্র তাঁর ইচ্ছেয় ভোটাধিকার প্রয়োগ করার কারণে।

এই অবস্থায় মুসলিম সমাজ এবংব স্থানীয় প্রশাসনের কাছে ন্যায় চাইছেন জাফর আলি। তাঁর কথায়, “মানুষ নিজের ইচ্ছেয় ভোট দিতে পারে। সেটা কারো বা কোনও গোষ্ঠীর অপছন্দ হলে তাঁকে একঘরে করে দিতে হবে? গণতান্ত্রিক দেশে এই ঘটনা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না।” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “আমি মুসলিম সমাজ এবং প্রশাসনের কাছে ন্যায় প্রার্থণা করছি।”

যদিও এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ। পাশাপাশি পুলিশের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে যে অভিযোগ দায়ের হলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *