ভারতের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নিতে ব্যর্থ জাতিসংঘ

রূপসী বাংলা আন্তর্জাতিক ডেস্ক: কাশ্মীর ইস্যুতে অর্ধ শতাব্দী পর বৈঠকে বসেছিল জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। তবে কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হয়েছে ওই বৈঠক। বৈঠকে ভারত-পাকিস্তানকে যেকোনো ধরনের একতরফা সিদ্ধান্ত নেয়া বন্ধ করার ব্যাপারে সম্মত হয়েছে স্থায়ী পাঁচ সদস্য। তবে রুদ্ধদ্বার বৈঠক হলেও আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি দিতে পারেনি বিশ্বের সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর এই কূটনৈতিক ফোরাম।

শুক্রবার নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দফতরে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, চীনের পক্ষ থেকে বৈঠকটি নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিবৃতির প্রস্তাব দেয়া হলেও স্থায়ী সদস্য যুক্তরাষ্ট্র-ফ্রান্স এবং অস্থায়ী সদস্য জার্মানি তাতে সম্মতি দেয়নি।

বৈঠক শেষে জাতিসংঘে নিযুক্ত চীনের স্থায়ী প্রতিনিধি জু ঝাং সাংবাদিকদের বলেন, নিরাপত্তা পরিষদের সব সদস্যরা কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে একমত হয়েছেন যে, এই ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তানের কোনো একতরফা পদক্ষেপ নেয়া উচিত হবে না।

বৈঠকের আগে রাশিয়া জানায়, কাশ্মীর ভারত-পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক বিষয়। তবে পাকিস্তানের পক্ষে আছে বলে আশ্বাস দিয়েছিল তারা। যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্স এবং জার্মানি কাশ্মীর নিয়ে বিবৃতি দেয়ার বিরোধিতা করে বলে, এ ধরনের কোনো বিবৃতি দিতে হলে তা সর্বসম্মতিক্রমে দেয়া উচিত।

সিএনএন তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, নিরাপত্তা পরিষদের ওই বৈঠক নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমের জাতিসংঘ বিষয়ক প্রতিবেদকদের সামনেই জাতিসংঘে নিযুক্ত ভারত ও পাকিস্তানের স্থায়ী প্রতিনিধিদের মধ্যে কথার লড়াই শুরু হয়।

জাতিসংঘে নিযুক্ত পাকিস্তানের স্থায়ী প্রতিনিধি মালিহা লোদি বলেন, ‘কাশ্মীরের মানুষের দাবি, দখলকৃত কাশ্মীরের মানুষের সেসব কথা বিশ্বের সর্বোচ্চ কূটনৈতিক ফোরাম আজ শুনেছে। নিরাপত্তা পরিষদের এই বৈঠক কাশ্মীর সমস্যাকে আন্তর্জাতিক ইস্যু হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।’ কাশ্মীর নিয়ে তার দেশ শান্তিপূর্ণ সমাধানে যেতে রাজি আছে বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *