করোনাভারত

ভারতে লকডাউন শিথিল, ভয়াবহ পরিস্থিতি

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে লকডাউন শিথিল করতেই করোনাভাইরাস পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। দেশটিতে এক দিনে প্রায় ৩ হাজার ৯০০ নতুন আক্রান্ত আর মারা গেছেন ১৯৫ জন।

আচমকাই করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বড় ধাক্কা খেল ভারত। হিন্দুস্থান টাইমস জানিয়েছে, করোনার হটস্পট বলে পরিচিত মহারাষ্ট্রেই সোমবার দেড় হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন।

তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত পাঁচ শতাধিক। এ পর্যন্ত ভারতে মোট আক্রান্ত ৫২ হাজার ৫৫৯। মারা গেছেন ১ হাজার ৭৮৫ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ১৫ হাজার ২৫৭।

১৭ মে পর্যন্ত চলবে তৃতীয় দফার লকডাউন। যদিও সোমবার থেকে লকডাউন অনেক শিথিল হয়েছে। এরই মধ্যে বাড়ি ফিরছেন প্রবাসীরা। ৭ মে থেকে তাদের ফেরাতে ৬৪টি বিমান পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

জানা গেছে, এ মুহূর্তে ১৩ দেশে ১৪ হাজার ৮০০ ভারতীয় আটকে রয়েছেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা অনুসারে ব্রিটেন, আরব আমিরাত, কাতার, সৌদি আরব, বাহরাইন, কুয়েত, ওমান, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, আমেরিকা, বাংলাদেশ ও ফিলিপিনস থেকে এসব ভারতীয়কে ফেরানো হবে। ইতোমধ্যে তাদের ফেরাতে বিমান রুট নির্ণয়ও হয়ে গেছে। প্রাথমিকভাবে স্থির হয়েছে, ম্যানিলা-চেন্নাই, শিকাগো-দিল্লি-হায়দ্রাবাদ, নিউইয়র্ক-দিল্লি-হায়দ্রাবাদ, কুয়েত-কোঝিকোড ও সানফ্রান্সিসকো-দিল্লি-বেঙ্গালুরু রুটে চালানো হবে বিমান।

৭ মে ১০টি বিমানে করে ২৩০০ ভারতীয়কে ফিরিয়ে আনা হবে। ৮ মে ৯টি দেশ থেকে চেন্নাই, কোচি, মুম্বাই, আহমেদাবাদ, বেঙ্গালুরু ও দিল্লিতে প্রায় ২০৫০ ভারতীয়কে ফিরিয়ে আনা হবে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, তৃতীয় দিনেও একই সংখ্যক ভারতীয় ফিরে আসার কথা। মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ, দক্ষিণ-পশ্চিম এশিয়া ও আমেরিকা থেকে মুম্বাই, কোচি, লক্ষ্ণৌ এবং দিল্লিতে এসে পৌঁছবেন নাগরিকরা।

চতুর্থ দিনে সরকারের তরফে ১৮৫০ ভারতীয়কে আমেরিকা, ব্রিটেন ও আরব আমিরাতসহ আট দেশ থেকে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

করোনার বিরুদ্ধে ভারতের লড়াইয়ে প্রথম থেকেই নিরলস শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন ডা. রণদীপ গুলেরিয়া। এইমস-এর এ পরিচালক ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসকে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, করোনাভাইরাস খুব শিগগিরই আমাদের ছেড়ে যাওয়ার রোগ নয়।

করোনাকে সঙ্গী করেই কিছু সময় আমাদের বাঁচতে হবে। আপাতত এর সংক্রমণ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনা গেলেও শীতকালে নতুন করে করোনাভাইরাস বড় আকার ধারণ করে হানা দিতে পারে। করোনা সংক্রমণের প্রাদুর্ভাব সম্পর্কে তিনি জানিয়েছেন, কমপক্ষে এক বছরের বেশি সময় ধরে আমাদের লড়তে হবে।◉

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension