মঙ্গলবারের মতো বন্ধ ভারত-নিউজিল্যান্ড সেমিফাইনাল

রূপসী বাংলা স্পোর্টস ডেস্ক : ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভারত-নিউজিল্যান্ড সেমিফাইনালে বাধ সাধল বৃষ্টি৷ মঙ্গলবারের মতো ম্যাচ বন্ধ ঘোষণা করেন আম্পায়ারা৷ নিউজিল্যান্ড ইনিংসের বাকি থেকেই বুধবার নির্ধারিত সময়ে খেলা শুরু হবে৷ এদিন নিউজিল্যান্ড ৪৬.১ ওভারে পাঁচ উইকেটে ২১১ রান তোলার পর বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হয়ে যায়৷ পরে বৃষ্টি থামলেও খেলা শুরু করার ঝুঁকি নেয়নি আম্পায়াররা৷ ভারতীয় সময় রাত ১০.৫০ মিনিট নাগাদ আজকের মতো ম্যাচ বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়৷ কিউয়ি ইনিংসে দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান রস টেলর (৬৭) এবং টম লাথাম (৩)৷ বুধবার ইনিংসের বাকি ২৩ বল খেলবে নিউজিল্যান্ড৷

ম্যাঞ্চেস্টারে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন কিউয়ি অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন৷ কিন্তু শুরু থেকেই ভারতীয় বোলারদের সামনে যথেষ্ট অস্বস্তিতে ছিলেন কিউয়ি ওপেনাররা৷ মেঘাচ্ছন্ন পরিবেশে নতুন বলে দারুণ বোলিং করেন ভারতীয় পেসাররা৷ জসপ্রীত বুমরাহ ও ভুবনেশ্বর কুমারের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের বিরুদ্ধে চলতি বিশ্বকাপে প্রথম পাওয়ার প্লে-তে সর্বনিম্ন স্কোর করে নিউজিল্যান্ড৷

ভুবনেশ্বর ও বুমরাহ দু’জনে প্রথম স্পেলে মোট ৯ ওভারে ২৩ রান দেন৷ প্রথম পাওয়ার প্লে-র শেষ অর্থাৎ ১০ নম্বর ওভারে হার্দিক পান্ডিয়ার হাতে বল তুলে দেন ক্যাপ্টেন কোহলি৷ প্রথম ওভারে মাত্র ৪ রান দেন পান্ডিয়া৷ অর্থাৎ প্রথম পাওয়ার প্লে-তে এক উইকেট হারিয়ে মাত্র ২৭ রান তোলে নিউজিল্যান্ড৷ এর আগে এজবাস্টনে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ১০ ওভারে এক উইকেট হারিয়ে মাত্র ২৮ রান তুলেছিল ভারত৷

লিগের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে মহম্মদ শামিকে বিশ্রাম দিয়েছিল ভারত৷ কিন্তু সেমিফাইনালেও টিম ম্যানেজমেন্ট শামিকে বাইরে রেখে ভুবনেশ্বের উপর আস্থা রাখে৷ আস্থার মর্যাদা দেন ভুবি৷ প্রথম স্পেলে ৫ ওভারে একটি মেডেন-সহ মাত্র ১৩ রান দেন টিম ইন্ডিয়ার এই ডানহাতি সুইয়িং বোলার৷ অন্য প্রান্তে দারুণ বোলিং করেন বুমরাহও৷ প্রথম স্পেলে ৪ ওভারে একটি মেডেন-সহ মাত্র ১০ রান খরচ করে মার্টিন গাপ্তিলের উইকেট তুলে নেন বুমরাহ৷ নিজের দ্বিতীয় ওভারের তৃতীয় বলেই গাপ্তিলকে ড্রেসিংরুমে ফেরান তিনি৷ ১৪ বল খেলে মাত্র এক রান করে ড্রেসিংরুমে ফেরেন মারকুটে কিউয়ি ওপেনার৷

শুরুতে রান-রেট ভালো না-থাকলেও ক্যাপ্টেন কেন উইলিয়ামসন ও রস টেলরের লড়াকু হাফ-সেঞ্চুরিতে দু’শোর গণ্ডি টপকে যায় নিউজিল্যান্ড৷ তবে অধিনায়ক ও প্রাক্তন অধিনায়ক যখন ম্যাচে জাঁকিয়ে বসছিল, তখন উইলিয়ামসনকে আউট করে ম্যাচের রাশ ভারতের দিকে টানেন যুবেন্দ্র চাহাল৷ ৯৫ বল খেলে ব্যক্তিগত ৬৭ রানে ড্রেসিংরুমে ফেরেন কিউয়ি ক্যাপ্টেন৷ উইলিয়ামসন আউট হওয়ার পর অবশ্য হাত খুলে খেলতে শুরু করেন টেলর৷

বুমরাহ ও ভুবনেশ্বরের মতো দারুণ বোলিং করেন রবীন্দ্র জাদেজা ও হার্দিক পান্ডিয়া৷ ১০ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে একটি উইকেট তুলে নেন বাঁ-হাতি স্পিরনার জাদেজা৷ আর ১০ ওভারে ৫৫ রান খরচ করে ভয়ংকর হয়ে ওঠার আগেই জিমি নিশামকে ড্রেসিংরুমের পথ দেখান পান্ডিয়া৷ চাহাল কিউয়ি অধিনায়কের উইকেট তুলে নিলেও ১০ ওভারে ৬৩ রান দেন৷ এ পর্যন্ত ৮ ওভারে ২৫ রান দিয়ে একটি নিয়েছেন বুমরাহ এবং ৮.১ ওভারে ৩০ রান দিয়ে একটি উইকেট নেন ভুবনেশ্বর৷

লিগে ভারত-নিউজিল্যান্ড লড়াই বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল৷ কিন্তু সেমিফাইনাল ও ফাইনালে রিজার্ভ ডে থাকায় সেই সম্ভাবনা কম৷ তবে বুধবারও বৃষ্টির জন্য খেলা শুরু না-হলে লিগে নিউজিল্যান্ডের থেকে এগিয়ে শেষ করার সুবাদে সরাসরি ফাইনালে চলে যাবে বিরাটবাহিনী৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *