যুক্তরাজ্যে করোনা লকডাউনে নারীদের ‘ফিমেল ভায়াগ্রা’ কেনার হিড়িক

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে যুক্তরাজ্যে ফিমেল ভায়াগ্রা বিক্রি বেড়েছে প্রায় ৪০০ গুণ। যুক্তরাজ্য জুড়ে ‘এলি সেরা’ নামের এই পিলটি এখন জনপ্রিয়তার তুঙ্গে। পিলটিকে ভায়াগ্রার পাশাপাশি ‘ক্ষমতায়ন পিল’ও বলা হচ্ছে। তবে পিলটি সম্পূর্ণ নিরাপদ কিনা তা নিয়ে এখনও সন্দেহ রয়েছে। রোববার (১৭ জানুয়ারি) যুক্তরাজ্যের সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের খবরে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

‘এলি সেরা’ ফ্রেঞ্চ এই শব্দ যুগলের ইংরেজি অর্থ ‘শি উইল বি’। ব্যবসায়ী এলিসা করিগান এই বিশেষ ক্যাপসুলটির উদ্ভাবক। ৩৫ বছর বয়সী তরুণী এলিসা ৫ বছর আগে থেকে নারীদের জীবনধারার উন্নয়ন নিয়ে কাজ করে আসছেন। তার বানানো সাপ্লিমেন্টকে ‘ক্ষমতায়ন পিল’ বলেও ডাকা হচ্ছে।

উজ্জ্বল নীল ভায়াগ্রা ট্যাবলেটের বিপরীতে ‘এলি সেরা’ দেখতে সোনালী। এই যৌগ বানাতে পাঁচটি ভেষজ উপাদান ব্যবহার করা হয়েছে যা নারীর আকাঙ্ক্ষাকে জাগিয়ে তোলে। ট্যাবলেটটি বানাতে ব্যবহার করা হয়েছে বিটরুট, জিঙ্কো পাতা, সাইবেরিয়ান জিনসেং, প্রাকৃতিক মাকার নির্যাস, ট্রাইবুলাস টেরেস্ট্রিস’র নির্যাস প্রভৃতি।

এলি সেরার ওয়েবসাইটে উল্লেখ করা তথ্য অনুযায়ী, দিনের শুরুতে খাবারের সাথে দুইটি ক্যাপসুল গ্রহণ করতে হবে। ৩০ দিনের একটি সাপ্লাই কিনতে খরচ পড়বে ৬৫ ডলার এবং ৪৫ ডলারে পাওয়া যাবে মাসিক সাবস্ক্রিপশন। ডেইলিমেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এটি সাধারণ ভায়াগ্রার চেয়েও বেশি চমৎকার অনুভূতি দেয়।

করিগান জানিয়েছেন সম্প্রতি করোনাকালে নারীদের জন্য বানানো ভায়াগ্রাজাতীয় ট্যাবলেট ‘এলি সেরা’র বিক্রি ৪০০ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। করিগান আরও বলেন, আপনারা বলতে পারেন দম্পতিদের ঘরে আটকে থেকে কিছু করার নেই। তারা নেটফ্লিক্স দেখতেই বেশি পছন্দ করে। তারা তাদের যৌনাকাঙ্ক্ষাও কমিয়ে ফেলেছেন। কমিয়ে ফেলেছেন বাসনাকেও। সবাই তাদের ঘরের পোষাকে নিতান্ত অনাকর্ষণীয় হয়ে উঠছে। ছেলেদের তো তাও ভায়াগ্রা আছে, কিন্তু মেয়েদের আকাঙ্ক্ষা বাড়ানোর জন্য কী ব্যবস্থা করা যায়? এটা (এলিসেরা) ভেতর থেকে জাগিয়ে তোলে, চিন্তাভাবনাতেও পরিবর্তন আনে।

কিন্তু নারীদের এই ভায়াগ্রা কী আসলেই কাজ করে? এ বিষয়ে ডা. ক্যারল কুপার বলেন, এলি সেরায় ব্যবহার করা বেশীরভাগ উপাদানই যৌনাকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধি করে। তবে এটা খেতে বলার পক্ষে খুব বেশী প্রমাণমূলক তথ্য নেই আমাদের কাছে। জিঙ্কো আর জিনসেং এর মতো ভেষজ উপাদান বেশী ব্যবহার করলে তা শরীরের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। এই প্যান্ডেমিকের সময় যৌনতার চেয়ে কীভাবে একটি সুস্থ জীবন পাওয়া যায় সেটার জন্য চেষ্টা করাটাই শ্রেয়।❐

দ্য সান

Exit mobile version