যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্রের আধিপত্যের যুগ শেষ

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনায় রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের একচ্ছত্র আধিপত্যের যুগ শেষ হয়ে গেছে। এখন পরাশক্তি হওয়ার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছে চীন ও জার্মানি। বৃহস্পতিবার গুরুত্বপূর্ণ এক বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন তিনি।

এর কারণ হিসেবে তিনি বিশ্বে ক্ষমতার ভারসাম্যে গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তনের কথা উল্লেখ করেন। পুতিনের কথায়, ‘ফ্রান্স ও ব্রিটেনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা ম্রিয়মাণ হচ্ছে। রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক শক্তির বিচারে পরাশক্তি হওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে চীন ও জার্মানি।

ওয়াশিংটন যদি বৈশ্বিক সমস্যা নিয়ে মস্কোর সঙ্গে আলোচনায় রাজি না হয়, তাহলে অন্য দেশের সঙ্গে নিজেরাই আলোচনায় প্রস্তুত রাশিয়া।’ রয়টার্স এ খবর জানিয়েছে।

করোনা মহামারীর মধ্যে বৃহস্পতিবার মস্কোভিত্তিক প্রভাবশালী গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘ভালদাই ডিসকাশন ক্লাব’ আয়োজিত একটি সেমিনারে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশ নেন পুতিন।

বৈশ্বিক করোনা মহামারী, শীতল যুদ্ধোত্তর বিশ্ব ব্যবস্থাসহ আরও বেশি কিছু বিষয়ে প্রায় ৪০ মিনিট ধরে বক্তব্য দেন তিনি। পুতিন বলেন, একসময় গোটা বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্রের ‘একচ্ছত্র আধিপত্য’ ছিল। তবে এখন আর তাদের পক্ষে সেই দাবী করা সম্ভব নয়।

বেশীর ভাগ আন্তর্জাতিক সমস্যা ওয়াশিংটন ও মস্কোর মধ্যে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করার যে যুগ ছিল তাও শেষ হয়ে গেছে। ব্রিটেন ও ফ্রান্সের নাম প্রায় দুই দশক ধরে ক্ষমতায় থাকা এই রাজনীতিক আরও বলেন, আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে এই দু দেশের ভূমিকাও লক্ষণীয়ভাবে হ্রাস পেয়েছে। সেই জায়গা নিয়েছে চীন ও জার্মানি।

অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক শক্তিমত্তার দিক দিয়ে পরাশক্তি হওয়ার দিকে দুর্বার গতিতে অগ্রসর হচ্ছে দেশ দুটি। তবে রাশিয়ার স্বার্থে আঘাত হানার বিষয়ে কঠোর হুশিয়ারি দিয়েছেন পুতিন।

তিনি বলেন, বিশ্বজুড়ে ক্ষমতার ভারসাম্যে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন সত্ত্বেও এসব দেশ এখনও রাশিয়াকে নতজানু করার স্বপ্ন দেখছে। দেশগুলোর উদ্দেশ করে কথার জাদুতে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন তিনি।

বলেন, ‘আমাদের মূল উদ্বেগ আপনাদের শেষকৃত্যে অসুস্থ না হয়ে পড়া।’ তবে নিজের বক্তব্যে বিভিন্ন বৈশ্বিক সমস্যা সমাধানে অন্যান্য দেশের সঙ্গে আলোচনায় বসার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট।

সাইবার নিরাপত্তা, অন্যান্য সুরক্ষা-সম্পর্কিত বিষয় ও পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে তিনি পরবর্তী মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে সংলাপেরও প্রস্তাব দিয়েছেন। মার্কিন নির্বাচন নিয়েও কথা বলেন পুতিন।

বলেন, তিনি আশা করেন নতুন প্রশাসন নিরাপত্তা ও পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সংলাপে প্রস্তুত থাকবে। সন্ত্রাসবাদ ও দারিদ্র্য বিষয়ে পুতিন বলেন, জাতিসংঘ ও নিরাপত্তা পরিষদে আমাদের ভেটো ক্ষমতা অবশ্যই রক্ষা করতে হবে।

সন্ত্রাসবাদ ও দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে হবে। বক্তব্যে রাশিয়ায় করোনা মহামারী ও এর মোকাবেলায় তার সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের সফলতা নিয়ে কথা বলেছেন পুতিন। তিনি বলেন, রাশিয়ায় করোনাবিরোধী লড়াইয়ে মানুষের জীবন সুরক্ষাতেই আমরা বেশি নজর দিয়েছি।

এর কারণ ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, বিংশ শতাব্দীতে একের পর এক যুদ্ধে আমরা বিশালসংখ্যক জনসংখ্যা হারিয়েছি।❐

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension