রাহুলের পদত্যাগের পর বেশ সংকটে কংগ্রেস : সিন্ধিয়া

রূপসী বাংলা কলকাতা ডেস্ক: রাহুল গান্ধীর পদত্যাগের পর বড়সড় সংকটে রয়েছে কংগ্রেস৷ এমনই মত প্রাক্তন সাংসদ জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার৷ বৃহস্পতিবার অনেক কংগ্রেস কর্মীর মনের কথাই বলে দিলেন সিন্ধিয়া৷ তিনি এদিন বলেন রাহুলের ইস্তফা হাত শিবিরের জন্য বড়সড় দুর্ভোগ নিয়ে আসবে৷

তবে এর বিকল্প রাস্তার কথাও এদিন জানিয়ে রেখেছেন সিন্ধিয়া৷ তিনি বলেন রাহুল গান্ধীর বিকল্প হিসেবে কংগ্রেসকে সামলাতে পারে একমাত্র কোনও প্রাণবন্ত নেতা৷ যার এনার্জি কংগ্রেসকে দিশা দেখাবে৷ কারণ এই সংকটে কংগ্রেসের প্রতিটি কর্মীকে একযোগে কাজ করতে হবে৷ তাদের এককাট্টা করে কংগ্রেসের হয়ে লড়তে হবে বলে বার্তা দেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া৷ যে পথে রাহুল হাঁটতে শিখিয়েছেন, নতুন কংগ্রেস নেতাদের সেই পথে হেঁটেই সফলতা আনতে হবে৷

গত সপ্তাহেই কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দেন রাহুল গান্ধী৷ ট্যুইট করে বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি, এদিন তিনি নিজের চার পাতার ইস্তফা পত্রও প্রকাশ করেন৷ সেই ঘটনাকে উল্লেখ করে এদিন সিন্ধিয়া বলেন ভারতীয় জনতা পার্টি কর্ণাটকের রাজনৈতিক সঙ্কট তৈরি করেছে৷ কংগ্রেস ও অন্যান্য দল শাসিত রাজ্যেগুলিতে গণতান্ত্রিক অচলাবস্থা তৈরি করতে চাইছে বিজেপি৷

গত কয়েকদিন ধরে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর থাকা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা তৈরি হয়েছিল। লোকসভা নির্বাচনে দেশজুড়ে কংগ্রেসের ফলাফল কার্যত তলানিতে গিয়ে ঠেকে। এই অবস্থায় দলের সভাপতি পদ থেকে সরে দাঁড়াতে চান রাহুল গান্ধী। কিন্তু দল সায় না দেওয়াতে সভাপতির পদ থেকে সরে দাঁড়াতে পারেনি রাহুল গান্ধী।

এরপরেই বুধবার রাহুলের মন্তব্যে তীব্র জল্পনা তৈরি হয়। এদিন তিনি বলেন, আমি আর কংগ্রেস সভাপতি নই। দল যত দ্রুত সম্ভব বিকল্প খুঁজুক।’

উল্লেখ্য রবিবার রাহুল গান্ধীর রাস্তায় হেঁটে দলের ন্যাশনাল জেনারেল সেক্রেটারি পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেসের এই দাপুটে নেতাকে অনেকেই সেরাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের বিপুল জয়ের পর মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দেখতে চেয়েছিলেন। তবে বর্ষীয়ান কমলনাথকেই সেই পদের জন্য বেছে নেয় কংগ্রেস হাই কমিশন।

সচিন পাইলটের মতো জ্যোতিরাদিত্যকে উপমুখ্যমন্ত্রীর পদে আসীন করতে চেয়েছিল রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বাধীন কংগ্রেস। তবে তা মেনে নেননি মাধবরাও সিন্ধিয়ার সন্তান। এরপর দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব তাঁর কাঁধে তুলে দেন রাহুল গান্ধী। এদিকে, রাহুল গান্ধীর ইস্তফার পর, মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস প্রধানের পদ ছেড়ে দেন মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ, এরপর খবর আসে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে নিয়েও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *