সাকিবের বিরুদ্ধে অভিযোগই গঠন করেনি আইসিসি

রূপসী বাংলা নিউজ ডেস্ক:‘ফিক্সিং এর তথ্য গোপন’ করায় আইসিসির নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান! মঙ্গলবার একটি দৈনিকে প্রচারিত এমন খবরে শঙ্কায় দেশের কোটি কোটি ক্রিকেটপ্রেমী। তবে আইসিসির বরাত দিয়ে ক্রিকইনফো জানিয়েছে, বিষয়টি তদন্তের পর্যায়ে রয়েছে।

ক্রিকইনফো আরো জানিয়েছে, এমনকি সাকিবের বিরুদ্ধে অভিযোগও গঠন করেনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা। যদিও এবিষয়ে মুখ খুলতে নারাজ আইসিসি ও তাদের দুর্নীতি দমন ইউনিট (আকসু)।

প্রটোকল অনুযায়ী তদন্ত শেষ হলেই জানা যাবে সাকিবের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা যাবে কিনা। অভিযোগ গঠনের পর সাকিবের বক্তব্য শুনবে আইসিসি। এর পরই জানা যাবে তার বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয়া যাবে।

কিন্তু এরইমধ্যে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে আগামী মাসে অনুষ্টিতব্য ভারতের বিপক্ষের সিরিজে খেলবেন না সাকিব। কারণ জাতীয় ক্রিকেট দলের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক, বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার, মর্যাদাপূর্ণ এমসিসির সদস্য সাকিব আল হাসান আইসিসি কর্তৃক নিষিদ্ধ হতে যাচ্ছেন অন্তত ১৮ মাসের জন্য। এটিই এখন বাংলাদেশ ক্রিকেটের টক অব দ্য কান্ট্রি। এমনকি শেষ বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও কথা বলতে হয়েছে।

আইসিসির অ্যান্টি করাপশন অ্যান্ড সিকিউরিটি ইউনিটের (আকসু) নিয়ম অনুযায়ী, ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পাওয়ার পরও যদি সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট দেশের বোর্ড কিংবা আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগকে না জানানো হয়, তাহলে সে অপরাধে ৬ মাস থেকে ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞার শাস্তি পর্যন্ত হতে পারে।

সাকিব আল হাসান ‘তথ্য গোপন’ করেছেন- এই অপরাধে বড় শাস্তির মুখোমুখি। কিন্তু খবরে প্রকাশ, তিনি ভুল স্বীকার করে নিয়েছেন এবং ক্ষমা চেয়েছেন- এ কারণে শাস্তি নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮ মাস। যদিও আনুষ্ঠানিকভাবে আইসিসির পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে কোনো কিছুই জানানো হয়নি।

তবে যদি সত্যই সাকিবের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আনা হয়, তাহলে সাকিবের পাশে থাকবে বিসিবি ও বাংলাদেশ সরকার। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সম্প্রতি আজারবাইজান সফর নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।

এ ব্যাপরে শেখ হাসিনা বলেন, বিসিবি সাকিবের পাশে আছে, তাকে সব ধরনের সহযোগিতা দিবে। ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পাওয়ার পর সাকিব সেটাকে গুরুত্ব দেয়নি। তার জানানো উচিৎ ছিল।

তিনি বলেন, সাকিব ভুল করেছে সেটা সে বুঝতে পেরেছে। তবে আইসিসি ব্যবস্থা নিলে আমাদের বেশি কিছু কারার থাকে না। এমনকি সাকিবকে সব ধরণের সহযোগিতা করার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ ব্যাপারে শেখ হাসিনা বলেন, বিসিবি সাকিবের পাশে আছে, তাকে সব ধরনের সহযোগিতা দিবে। ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পাওয়ার পর সাকিব সেটাকে গুরুত্ব দেয়নি। তার জানানো উচিৎ ছিল।

তিনি বলেন, সাকিব ভুল করেছে সেটা সে বুঝতে পেরেছে। তবে আইসিসি ব্যবস্থা নিলে আমাদের বেশি কিছু করার থাকে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *