সিগারেট খেয়ে যে অবস্থা ফুসফুসের

রূপসী বাংলা আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চীনে সম্প্রতি মারা গেছেন ৫২ বছর বয়সী এক ব্যক্তি। মরার আগে তিনি মরদেহ দান করে গিয়েছিলেন হাসপাতালে। মরার পর প্রতিস্থাপনের জন্য তার ফুসফুস বের করেন চিকিৎসকরা। কিন্তু তার ফুসফুস দেখে অবাক চিকিৎসকরা। এর যা হাল হয়েছে তাতে এই ফুসফুস আর কারো দেহে প্রতিস্থাপনের অবস্থায় নেই।

জানা যায়, গত ৩০ বছর ধরে নিয়মিত এক প্যাকেটেরও বেশি সিগারেট খেতেন ওই ব্যক্তি। যার জেরে তার ফুসফুস ভরে গিয়েছে নিকোটিনের স্তরে। ফুসফুসের লালা রং বদলে হয়েছে মিসমিসে কালো। সেই ঘটনার ভিডিয়ো এখন ঘুরে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে। যা দেখে নেটিজেনরা বলছেন, ‘ধূমপান বিরোধী শ্রেষ্ঠ বিজ্ঞাপন এটি’।

চীনের জিংয়ু প্রদেশের ইউক্সি পিপল’স হাসপাতালে ফুসফুসের সংক্রমণে মৃত ডোনারের এমন ফুসফুসের ছবি সামনে এনে চিকিৎসকরা বলেছেন, ‘সিগারেট পুড়িয়ে ছারখার করে ফুসফুস। এই ছবি দেখুন, আর সিগারেট খাওয়া ছাড়ুন।’

চিকিৎসক চেন জিয়াংগু জানিয়েছেন, দেহ দানের অঙ্গিকার থাকলেও এই ফুসফুস প্রতিস্থাপনের অযোগ্য। অন্য কোনও রোগীর দেহে তা বসানো যায় না। যদি কোনও রোগীর দেহে এই ফুসফুস প্রতিস্থাপন করা হয়, তবে তারও নানা রোগ হতে পারে।

জিয়াংগু আরও বলেন, ‘আমার দল এই ফুসফুসের প্রতিস্থাপন করতে অস্বীকার করেছে। যদি কোনো ব্যক্তি অতিরিক্ত ধূমপান করেন, তা হলে তার ফুসফুস অন্য কাউকে দান করা উচিত নয়।’

সূত্র: আনন্দবাজার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *