স্যামসাংয়ের ভাইস চেয়ারম্যানের কারাদণ্ড

ঘুষের মামলায় আবারও গ্রেপ্তার হলেন স্যামসাং এর ভাইস চেয়ারম্যান জে ওয়াই লি।

২০১৫ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হাই এর বন্ধু চোয়ে সুন সিলকে প্রায় চার কোটি ডলার ঘুষ দেয়ার অভিযোগ করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

একই মামলায় ২০১৭ সালে পাঁচ বছরের জন্য কারাদণ্ড দেয়া হয় তাকে। সেসময় নিজেকে নির্দোষ প্রমাণের জন্য জামিন পেলেও সোমবার তাকে আবারও গ্রেপ্তার করে জেলে পাঠানো হয়।

ফলে মহামারীর অর্থনৈতিক ধাক্কা সামলানোর আগেই নেতৃত্বশূন্য হয়ে পড়লো বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান স্যামসাং।

জে ওয়াই লির বিরুদ্ধে অভিযোগ, দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান স্যামসাং সিঅ্যান্ডটি এবং চেইল ইন্ডাস্ট্রিজকে একীভূত করার সময় কর ফাঁকি দিতে ঘুষ দিয়েছিলেন তিনি। সেসময় শেয়ারহোল্ডারদের আপত্তি থাকার পরেও সরকার এটি অনুমোদন দেয়।

এমনকি স্যামসাংয়ের প্রধান পদে মনোনয়ন পেতেও সরকারকে তদবির করার পাশাপাশি বড় অংকের ঘুষ দেন লি। ২০১৭ সালে সর্বোচ্চ আদালতে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণের জন্য আপীল করে জামিন পান তিনি। পরে মামলাটি সিউলের করে আদালতের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

বৃহস্পতিবার সেখানে দীর্ঘ আট ঘন্টা জেরার পর লিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আগের দফায় কয়েক মাস কারাদণ্ড ভোগের কারণে এবার জে ওয়াই লিকে আড়াই বছর জেলে থাকতে হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে আদালতের এই রায়ের ভবিষ্যতে স্যামসাংয়ের তার নেতৃত্ব অনিশ্চয়তার মুখে পড়বে।

লির কারাদণ্ডের ঘোষণার পরই স্যামসাংয়ের শেয়ারের দাম শতকরা চার ভাগ কমে যায়। ২০১৪ সালে স্যামসাংয়ের চেয়ারম্যান লি কুন হে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার পর প্রতিষ্ঠানটির নেতৃত্বে আসেন তাঁর ছেলে জে ওয়াই লি।❐

Exit mobile version