হরিয়ানায় ক্ষমতা হারাচ্ছে বিজেপি, জরুরি বৈঠকে অমিত

রূপসী বাংলা কলকাতা ডেস্ক: ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের বিধান সভা নির্বাচনে আশানুরূপ আসন পাচ্ছে না ক্ষিমতাসীন দল বিজেপি। এ অবস্থায় সেখানে সরকার গঠন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে দলটির পক্ষে। ফলে প্রবল চাপের মুখে পড়েছে বিজেপি। হরিয়ানায় ভোটের রাজনীতিতে চৌতালার উত্থানে কার্যত ঘুম ছুটে গেছে তাদের। এই অবস্থায় জরুরি বৈঠক ডেকেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ।

জরুরি এই বৈঠকে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহার লাল খাট্টাকে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরের মধ্যে দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। এই বৈঠকে মূলত হরিয়ানাতে কেন বিজেপির এই অবস্থা হল তা নিয়েই আলোচনা হতে পারে।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুরু হয়েছে হরিয়ানায় ভোট গণনা। সর্বশেষ ভোট গণনায় দেখা যায়, রাজ্য়ের ৯০টি আসনের মধ্যে ৩৬ টিতে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি, আর ৩২টিতে কংগ্রেস। তবে সবাইকে চমকে দিয়ে কিং মেকারের ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে চলেছে জননায়ক জনতা পার্টি (জেজেপি)। তারা এগিয়ে ১১টি আসনে। হরিয়ানায় বিজেপির লক্ষ্য ছিল ৭৫ আসনে জয় পাওয়া।

শেষ পর্যন্ত সংখ্যায় কিছু অদলবদল ঘটলেও বিজেপি যে লক্ষ্যের ধারেকাছে-ও পৌঁছাতে পারবে না, তা এখনই স্পষ্ট। এরপরই হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টরকে দিল্লিতে ডেকে পাঠিয়েছে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব।

অন্যদিকে জনতা পার্টির প্রধান চৌতালার কাছে মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে বিরোধী দল কংগ্রেস। বিজেপিকে রুখতে দলটি মুখ্যমন্ত্রী পদও ছাড়তে রাজি আছে বলে জনতা পার্টি প্রধানকে জানিয়েছে কংগ্রেস।

স্থানীয় এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে চৌতালা জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে এখনও কারোর সঙ্গে কোনো আলোচনা হয়নি। ভোটের সম্পূর্ণ ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর তিনি এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন।

তবে হরিয়ানায় চৌতলার উত্থানে উদ্বিগ্ন বিজেপি। হরিয়ানায়ে জোট সরকার গঠন করতে ইতিমধ্যে চৌতলার সঙ্গে যোগাযোগও করেছে দলটি।

সূত্র: কলকাতা টুয়েন্টি ফোর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *