১০ হাজার ব্যক্তির মৃতদেহ জ্বালিয়ে দিয়েছে চীন!

৩১ ডিসেম্বর থেকে এখনও অবধি সরকারিভাবে নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ১১০০ জনের মৃত্যুর কথা স্বীকার করেছে চীন প্রশাসন। আক্রান্তের সংখ্যা ৪২ হাজার ৷ ইতোমধ্যেই বিশ্বের ২৫টি দেশে করোনা আক্রান্ত পাওয়া গেছে।
 
তবে সম্প্রতি স্যাটেলাইট পিকচারে উঠে এসেছে ভিন্ন চিত্র। যেখানে দেখা যাচ্ছে বাতাসে সালফার ডাই অক্সাইডের মাত্রা এতটাই তীব্র যে সেই এলাকাগুলিকে একেবারে আলাদা করে চিহ্ণিত করা যাচ্ছে।
 
ব্রিটেনের জনপ্রিয় ডেইলি মেইল এই স্যাটেলাইট ইমেজ দিয়ে খবর প্রকাশ্যে এনেছে যে চীনে করোনা আক্রান্ত ১০ হাজার ব্যক্তির মৃতদেহ জ্বালিয়ে দিয়েছে চীন।
 
নির্ধারিত অঞ্চলে বাতাসে সালফার ডাই অক্সাইডের মাত্রা প্রতি ঘন মিটারে ১৩৫০ (µg/m3)। এমনি নিয়ম অনুযায়ী প্রতি ঘনমিটারে ৮০র বেশি সালফার ডাই অক্সাইড থাকলেই তা যথেষ্ট ক্ষতিকর বলে মানা হয়। সাধারণ নিউক্লিয়ার প্ল্যান্টস গণ পশু মৃত্যু, প্রচুর কেমিক্যাল বর্জ্য থেকে বাতাসে সালফার ডাই অক্সাইডের মাত্রা বাড়তে পারে। তবে এ ধরণের মাত্রা হওয়ায় ধারণা হয়েছে উহান যেটা সবচেয়ে খারাপভাবে করোনা আক্রান্ত সেখান গণ অগ্নিসৎকার কার্য চলছে।
 
এই গণসৎকারের তত্ত্ব আরও জোরালো হচ্ছে কারণ উহান ছাড়া আরও একটি জায়গার বাতাসের সালফার ডাই অক্সাইডের মাত্রা অত্যন্ত বেশি সেটা হলো চোংকিয়াং। উহানের পর দক্ষিণ চীনের এই প্রদেশ সবচেয়ে খারাপভাবে করোনা আক্রান্ত। এখানে প্রতি ঘনমিটারে বাতাসে সালফার ডাই অক্সাইডের পরিমাণ ছিল ৮০০। এরপরেই চীন নিজেদের দেশে হওয়া মহামারির খবর লুকোতে লাশ জ্বালিয়ে দিয়েছে এই তত্ত্বে সিলমোহর দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *