১৮ বছর পর নাটকে আসাদুজ্জামান নূর

রূপসী বাংলা বিনোদন ডেস্ক: রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে সাতটি নতুন নাটক নিয়ে সাত দিনের উৎসব আয়োজন করেছে নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়। ১৯৭৩ সালে প্রথমবার বাংলাদেশে দর্শনীর বিনিময়ে নিয়মিত নাটক মঞ্চায়নের মাধ্যমে ইতিহাস সৃষ্টি করে দলটি। ৪৬ বছর পর আবারও ইতিহাস সৃষ্টি করল তারা। গতকাল শুক্রবার থেকে শিল্পকলা একাডেমিতে শুরু হয়েছে নাটকের প্রদর্শনী। এখানে প্রতিটি নাটকেরই প্রথম প্রদর্শনী হচ্ছে। ‘আয় নাটকের অঙ্গনে’ স্লোগানে উৎসবের শিরোনাম ‘নতুনের উৎসব ২০১৯ ’।

নাটকের উৎসব মানেই দেশের নামী দলগুলোর সমকালীন নাটকের সমাহার। এর বাইরে আমন্ত্রণ জানানো হয় দেশের বাইরে বিশেষ করে পশ্চিম বাংলার দু-একটি দলকে। কালকের উৎসবটি তাই নতুন ধারণা নিয়ে এসেছে। আর এ ব্যতিক্রম উৎসবে শুরুর দিনের বড় চমক, খ্যাতিমান অভিনেতা আসাদুজ্জামান নূর।

পান্থ শাহরিয়ারের রচনা এবং নির্দেশনায় নাগরিকের নিজস্ব অর্থায়নে নির্মিত ‘কালো জলের কাব্য’ নাটকের উদ্বোধন করা হয় গতকাল। উইলিয়াম শেক্‌সপিয়ারের ‘মার্চেন্ট অব ভেনিস’-এর এ দেশের প্রেক্ষাপটে নিজস্ব আঙ্গিকে রূপায়ণ। নাটকের কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন আসাদুজ্জামান নূর। এর মাধ্যমে দীর্ঘ ১৮ বছর পর তাঁকে দেখা গেল নতুন মঞ্চনাটকে। রয়েছেন অপি করিমের মতো উজ্জ্বল তারকাও। আসাদুজ্জামান নূর সর্বশেষ ২০০১ সালে অভিনয় করেছিলেন ‘মুখোশ’ নাটকে। এরপর আর তাকে দেখা যায় নি।

ঠিক সন্ধ্যা সাতটায় দর্শকের অপেক্ষার অবসান হলো বাঁশির সুরে। পর্দা নামতেই চোখ ধাঁধানো মঞ্চ। শুরু হলো নাগরিক নাট্যসম্প্রদায়ের ৪৭ তম প্রযোজনা। মিলনায়তন-ভর্তি দর্শক সাক্ষী থাকলেন ‘কালো জলের কাব্য’ নাটকের প্রথম প্রদর্শনীতে। নাটকে ‘শাইলক’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন আসাদুজ্জামান নূর। জাহাজঘাটে ভাঙারি কেনাবেচা করে জীবিকা নির্বাহ করেন এমন একটি চরিত্র। নাটকে জাহাজভাঙা শিল্পে শ্রমিকের জীবনের হাসি-কান্না-দুঃখ-ভালোবাসার নিয়ন্ত্রণ যেন আসাদুজ্জামান নূর ‘ভাঙারি’র হাতে।

নাটক দেখতে দেখতে নির্দেশক পান্থ শাহরিয়ারের কথাটি মনে পড়ে গেল, তিনি বলেছিলেন, ‘“মার্চেন্ট অব ভেনিস”-এর ছায়া অবলম্বনে হলেও শেক্‌সপিয়ারের “মার্চেন্ট অব ভেনিস” নয় “কালো জলের কাব্য”। গল্পটা আমাদের, একান্তই আমাদের।

সাতদিনের এই উৎসবে আগামী বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে উৎসবের সমাপনী দিন। এদিন চার জ্যেষ্ঠ নাট্যব্যক্তিত্ব ফেরদৌসী মজুমদার, জ্যোৎস্না বিশ্বাস, লাকী ইনাম ও শিমূল ইউসুফকে সম্মাননা জানানো হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *