৫ বছর নিষিদ্ধ শাহাদাত, ৩ লাখ টাকা জরিমানা

রূপসী বাংলা কলকাতা ডেস্ক: একটা সময়ে জাতীয় দলের অটোমেটিক চয়েজ ছিলেন শাহাদাত হোসেন রাজিব। ২০০৫ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ৩৮টি টেস্ট, ৫১টি ওয়ানডে আর ৬টি- টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে ১২৫ উইকেট শিকার করেন তিনি। জাতীয় দলে সাবেক হয়ে যাওয়া ৩৩ বছর বয়সী এ ডানহাতি পেসার এখন ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেই সময় কাটান। কিন্তু সতীর্থকে মেরে এবার ৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন জাতীয় দলের সাবেক এই পেসার। নিষিদ্ধের পাশাপাশি জরিমানা গুনতে হবে ৩ লাখ টাকার।

বিসিবির টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান মিনহাজুল আবেদীন নান্নু মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে শাহাদাতের শাস্তির কথা জানান। তিনি জানান ৫ বছরের মধ্যে শেষ ২ বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞা, চাইলে আগামী ২৬ নভেম্বরের মধ্যে বিসিবির কাছে শাস্তি কমানোর আপিল করতে পারবেন শাহাদাত।

তার আগ্রাসী মানসিকতা নতুন কিছু নয়। কদিন আগে ট্রাফিক সিগন্যাল অমান্য করে উল্টোপথে গাড়ি চালিয়ে নেতিবাচক খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন শাহাদাত। তার আগে গৃহকর্মীর গায়ে হাত তুলে হাজতবাস করেছিলেন শাহাদাত।

খুলনায় স্বাগতিকদের বিপক্ষে ঢাকা বিভাগের মধ্যকার জাতীয় লিগের ম্যাচে সতীর্থ আরাফাত সানিকে (জুনিয়র) মাঠে পেটান শাহাদাত। ম্যাচ চলাকালীন সময়ে এই কাণ্ডে শাহাতাদকে মাঠ থেকে বের করে দেওয়া হয়েছিল। জানা যায়, শাহাদাত বলের একটি অংশে শাইন দিতে সানিকে নির্দেশ দেন। সানি তাতে অনীহা প্রকাশ করলে মাঠেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন শাহাদাত। এ সময় তিনি সানিকে চড়-থাপ্পড়-লাথি মারেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে সতীর্থ এবং আম্পায়াররা এগিয়ে আসেন।

ষষ্ঠ রাউন্ডের এই ম্যাচের তৃতীয় দিন খুলনার বিপক্ষে ১০ জন নিয়ে খেলতে হচ্ছে ঢাকা বিভাগকে। চলমান ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করা হয় শাহাদাতকে। গতকাল ম্যাচ রেফারি আখতার আহমেদ তার প্রতিবেদনে শাহাদাতের অপরাধকে ‘লেভেল-৪’ বলে উল্লেখ করেন।

নিয়মানুযায়ী এই অপরাধের শাস্তি সর্বনিম্ন এক বছর থেকে পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা। এছাড়া, ম্যাচ ফি’র পুরোটা জরিমানা করা হয়েছে। ম্যাচ রেফারির প্রতিবেদনটি টেকনিক্যাল কমিটি প্রধান মিনহাজুল আবেদীনের হাতে পৌঁছায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *