আন্তর্জাতিকমধ্যপ্রাচ্য

ইসরায়েল-গাজা যুদ্ধের ৩০ দিন

রবিবার ৩০তম দিন পার করছে ইসরায়েল ও গাজার যুদ্ধ। ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস সীমান্ত পেরিয়ে ইসরায়েলে এক নজিরবিহীন হামলা চালায়। ইসরায়েলি কর্মকর্তাদের মতে, সেই হামলায় প্রায় এক হাজার ৪০০ জন নিহত এবং ২৪০ জনেরও বেশি জিম্মি হয়েছে। সেদিন থেকেই যুদ্ধ শুরু হয়।

ইসরায়েল ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে লাগাতার বোমাবর্ষণ শুরু করে এবং সেনা পাঠায়। হামাস শাসিত গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলেছে, ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত ৯ হাজার ৭৭০ জন নিহত হয়েছে, যার মধ্যে অন্তত চার হাজার ৮০০ শিশু।
ইসরায়েল ও গাজার যুদ্ধে গত ২৪ ঘণ্টার পাঁচটি উল্লেখযোগ্য খবর :

ব্লিনকেন ও আব্বাসের বৈঠক
অধিকৃত পশ্চিম তীরে ক্রমবর্ধমান সহিংসতা নিয়ে উদ্বেগ বাড়ার কারণে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন রবিবার রামাল্লায় একটি আকস্মিক সফরে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে দেখা করেছেন।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, ব্লিনকেন রবিবার মাহমুদ আব্বাসকে বলেছেন, গাজার ফিলিস্তিনিদের ‘জোর করে বাস্তুচ্যুত করা উচিত নয়’।

মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার বলেছেন, তারা পশ্চিম তীরে ‘ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে চরমপন্থী সহিংসতা বন্ধ করার প্রয়োজনীয়তা’ নিয়েও আলোচনা করেছেন।

এর আগে এই অঞ্চলে সফরের অংশ হিসেবে শনিবার জর্দানে যান শীর্ষ মার্কিন কূটনীতিক। এর আগে হামাসকে ধ্বংস করার যুদ্ধে মানবিক ‘বিরতি’ নিশ্চিত করতে তার প্রচেষ্টাকে ইসরায়েল প্রত্যাখ্যান করে। এরপর জর্দানে তিনি পাঁচজন আরব পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে ক্রোধের ক্রমবর্ধমান জোয়ারের মুখোমুখি হন।

মিসরীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী সামেহ শউকরি ‘অবিলম্বে ও ব্যাপক যুদ্ধবিরতি’ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তার দেশ বিদেশিদের গাজা থেকে পালাতে এবং গাজায় সহায়তা প্রবেশের একমাত্র মাধ্যম হিসেবে কাজ করছে।

এদিকে গাজায় রক্তপাতের প্রতিবাদে আংকারা ইসরায়েল থেকে তার রাষ্ট্রদূতকে প্রত্যাহার করার এক দিন পর রবিবার ব্লিনকেনের তুরস্কে যাওয়ার কথা।

২৫০০ লক্ষ্যবস্তুতে আঘাতের দাবি ইসরায়েলের
ইসরায়েলি সেনাবাহিনী রবিবার বলেছে, গত মাসের শেষের দিকে স্থল সেনারা ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে প্রবেশের পর থেকে তাদের বাহিনী ‘আড়াই হাজারেরও বেশি সন্ত্রাসী লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করেছে’।

সেনাবাহিনী বলেছে, ‘আইডিএফ (প্রতিরক্ষা বাহিনী) সেনারা সন্ত্রাসীদের নির্মূল করতে ক্লোজ কোয়ার্টার যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে’ এবং হামাসের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করার জন্য বিমান হামলা হচ্ছে।

একটি ‘সামরিক কম্পাউন্ডে’ আঘাত করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেছে তারা।
‘গাজা উপত্যকায় স্থল, বিমান ও নৌবাহিনীর সম্মিলিত কার্যক্রম চলাকালীন আড়াই হাজারেরও বেশি সন্ত্রাসী লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করা হয়েছে।’

শরণার্থীশিবিরে আঘাত
হামাস পরিচালিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, শনিবার গভীর রাতে মধ্য গাজার আল-মাগাজি শরণার্থীশিবিরে ইসরায়েলি হামলায় অন্তত ৪৫ জন নিহত হয়েছে।

একজন ইসরায়েলি সামরিক মুখপাত্র বলেছেন, সে সময় ওই এলাকায় তাদের সেনারা তৎপর ছিল কি না, তা খতিয়ে দেখছেন তারা।

এর আগে শনিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলেছিল, ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের জন্য জাতিসংঘের সংস্থা ইউএনআরডাব্লিউএ পরিচালিত জাবালিয়া শরণার্থীশিবিরের আল-ফাখুরা স্কুলে ইসরায়েল হামলা চালালে অন্তত ১৫ জন নিহত হয়।

মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেছেন, আঘাতের সময় ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডের উত্তরে অবস্থিত স্কুলটিতে আশ্রয় নেওয়া হাজার হাজার বাস্তুচ্যুত ফিলিস্তিনি অবস্থান করছিল।

পশ্চিম তীরের সহিংসতা
ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, অধিকৃত পশ্চিম তীরে রবিবার ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে তিন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে সেহানে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে।

মন্ত্রণালয় বলেছে, ২২ ও ২০ বছর বয়সী দুই ফিলিস্তিনি পূর্ব জেরুজালেমের শহরতলির আবু ডিসে নিহত হয়েছেন এবং অন্য একজন দক্ষিণে নুবায় নিহত হয়েছেন।

অন্যদিকে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে বলেছে, এই অভিযানগুলো তাদের ‘হামাসবিরোধী’ অভিযানের অংশ।

মানবিক সহায়তার আবেদন
ওয়ার্ল্ড ফুড প্রগ্রাম (ডাব্লিউএফপি) গাজার জন্য আরো সহায়তার আবেদন করেছে। সংস্থাটি জোর দিয়ে বলেছে, এখন পর্যন্ত পৌঁছনো ট্রাকগুলো প্রয়োজনের তুলনায় খুবই কম।

সংস্থার প্রধান সিন্ডি ম্যাককেইন রবিবার মিসর ও ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডের মধ্যে রাফাহ সীমান্ত ক্রসিং পরিদর্শন করার পর বলেছেন, ‘সীমান্তের এই (মিসরীয়) পাশে দাঁড়িয়ে দুর্ভোগ অকল্পনীয়। এই মুহূর্তে গাজার মা-বাবারা জানেন না যে তারা আজ তাদের বাচ্চাদের খাওয়াতে পারবেন কি না এবং আগামীকাল তারা বেঁচে থাকবে কি না।’

ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ক্যাথরিন কোলোনা কাতার সফরের সময় একটি ‘অবিলম্বে, টেকসই ও পর্যবেক্ষণকৃত মানবিক যুদ্ধবিরতির’ আহ্বান জানিয়েছেন।

সূত্র: এএফপি

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension