যুক্তরাষ্ট্র

জর্জিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করবে যুক্তরাষ্ট্র?

জর্জিয়ার বিতর্কিত ‘ফরেন এজেন্ট’ বিলকে কেন্দ্র করে দেশটির ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র। পাশাপাশি দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক পর্যালোচনা করবে তারা। বিলটিকে কেন্দ্র করে জর্জিয়ায় ব্যাপক বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিঙ্কেন বৃহস্পতিবার বলেছেন, জর্জিয়ায় গণতন্ত্রকে ক্ষুণ্ন করায় যুক্ত ব্যক্তি ও তাদের পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে ভিসা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।

এক বিবৃতিতে ব্লিঙ্কেন বলেন, আমাদের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ক্ষেত্রে জর্জিয়ার গণতন্ত্রের প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সমর্থন দীর্ঘস্থায়ী ও মৌলিক। জর্জিয়ায় অক্টোবর মাসে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনের সময় ও এর আগে–পরে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ও প্রতিষ্ঠান ক্ষুণ্নকারী যে কেউ নতুন নীতির আওতায় মার্কিন ভিসা পাওয়ার ক্ষেত্রে অযোগ্য হবেন এবং যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণ করতে পারবেন না।

জর্জিয়ার প্রস্তাবিত ফরেন এজেন্ট বিল দেশটির অধিবাসীদের সমাবেশ ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতা রুদ্ধ করবে বলে মন্তব্য করেন ব্লিঙ্কেন। তিনি বলেন, এটি জর্জিয়ার বাসিন্দাদের উচ্চমানের তথ্য সরবরাহে কাজ করে চলা নিরপেক্ষ গণমাধ্যমগুলোর কর্মকাণ্ডে বাধার সৃষ্টি করবে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, আমাদের আশা, জর্জিয়ার নেতারা ওই খসড়া আইন পুনর্বিবেচনা করবেন এবং দেশের জনগণের গণতান্ত্রিক ও ইউরো–আটলান্টিক প্রত্যাশা এগিয়ে নিতে পদক্ষেপ নেবেন। আমরা আমাদের দুই দেশের সম্পর্ক যেহেতু পুনর্বিবেচনা করছি, তাই নিজস্ব সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে আমরা জর্জিয়ার পদক্ষেপ বিবেচনায় নেব।

জর্জিয়ার ক্ষমতাসীন ড্রিম পার্টি গত সপ্তাহে ‘ফরেন এজেন্ট’ বিল পাস করেছে। বিলে বলা হয়েছে, যেসব বেসরকারি সংগঠন (এনজিও) ও গণমাধ্যম তাদের অর্থায়নের ২০ শতাংশের বেশি দেশটির বাইরে থেকে আনছে, তাদের ‘বিদেশি শক্তির স্বার্থ প্রতিপালনকারী’ প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিবন্ধন করতে হবে।

যেসব সংগঠন এ ব্যবস্থা অনুসরণ করবে না, সেগুলোকে ৯ হাজার ২০০ ডলার পর্যন্ত জরিমানা গুণতে হবে। পরবর্তী সময়ে অসহযোগিতার জন্য প্রতি মাসে দিতে হবে বাড়তি ৭ হাজার ৩০০ ডলার।

সমালোচকেরা বলছেন, ২০১২ সাল থেকে ক্ষমতায় থাকা জর্জিয়ান ড্রিম পার্টি ভিন্নমত দমনে রাশিয়ার আইনে অনুপ্রাণিত হচ্ছে।

গত ১৪ মে ফরেন এজেন্ট বিল পাস হওয়ার পর জর্জিয়ার রাজধানী তিবলিসিতে পার্লামেন্ট ভবনের বাইরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ান হাজার হাজার বিক্ষোভকারী।

এ ঘটনায় জর্জিয়াকে বিলটি বাতিল করার আহ্বান জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সতর্ক করে বলেছে, এটি না করলে ইউরোপীয় ইউনিয়নে দেশটির যোগদান ও পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর সঙ্গে তার সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা বাধাগ্রস্ত করতে পারে।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension