আন্তর্জাতিকমধ্যপ্রাচ্য

জিম্মিদের মুক্তি ছাড়া গাজায় যুদ্ধবিরতি না দিতে তেলআবিবে স্বজনদের অবস্থান

হামাসের হাতে বন্দী ইসরায়েলিদের পরিবারের সদস্যরা তেলআবিবে একটি রাস্তা অবরোধ করেছে। ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনীর (আইডিএফ) সদর দপ্তরের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে তারা দাবি জানিয়েছে, বন্দীদের মুক্তি দেওয়া না হলে যেন গাজায় যুদ্ধবিরতিতে সম্মত না হয় ইসরায়েল সরকার।

তেলআবিবে কিরিয়া সামরিক ঘাঁটিতে অবস্থিত আইডিএফের সদর দপ্তর। এই সামরিক ঘাঁটির প্রধান ফটকের সামনে গতকাল শুক্রবার অবস্থান নেয় হামাসের হাতে বন্দী ইসরায়েলিদের পরিবার। সেখানে প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর প্রতি দাবি জানান হয় যে, সকল বন্দীকে মুক্তি না দেওয়া পর্যন্ত গাজায় যেন যুদ্ধবিরতিতে সম্মত না হয় ইসরায়েল। আর এ ব্যাপারে নেতানিয়াহু প্রকাশ্য ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত বন্দীদের পরিবার আইডিএফ-এর সদর দপ্তরের সামনেই অবস্থান করার ঘোষণা দেয়।

অবরোধে তেলআবিব শহরের শাউল হামেলেচ সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে দ্য টাইমস অব ইসরায়েল।

এর আগে, একটি সংবাদ সম্মেলনও আয়োজন করে তাঁরা। সেখানে বক্তব্য দেন ইসরায়েল সুপ্রিম কোর্টের সাবেক প্রধান বিচারপতি আহারন বারাক। হামাসের হামলায় নিহত এবং তাদের হাতে জিম্মিদের পরিবারের সদস্যরাও সেখানে কথা বলেন। বন্দীদের দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণের ব্যাপারে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তারা।

গত ৭ অক্টোবর সকালে ইসরায়েলে নজিরবিহীন হামলা শুরু করে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। তারা মাত্র ২০ মিনিটের মধ্যে ইসরায়েলের দিকে ৫ হাজার ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ে। একই সঙ্গে স্থলপথ, জলপথ ও আকাশপথে দেশটিতে ঢুকে পড়েন হামাস যোদ্ধারা। হামাসের হামলায় ১ হাজার ৪০০ জনের বেশি ইসরায়েলি নিহত হয়েছে। এখনো অনেকে হামাসের কাছে বন্দী আছে।

হামাসের সামরিক শাখা কাসাম ব্রিগেডের মুখপাত্র আবু উবাইদা বলেছিলেন, তাদের হাতে বন্দীর সংখ্যা দুইশো থেকে আড়াইশো। এর মধ্যে গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি হামলায় প্রায় ৫০ জন জিম্মি নিহত হয়েছে বলেও তিনি জানান।

অন্যদিকে, ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর তথ্য মতে, হামাসের হাতে মোট বন্দীর সংখ্যা ২৪০। এর মধ্যে সেনা সদস্য ছাড়াও রয়েছে বেসামরিক নাগরিক এবং কয়েকজন বিদেশি।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension