আন্তর্জাতিকগণমাধ্যমযুক্তরাষ্ট্র

জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে মুক্তির আবেদন গার্ডিয়ান, নিউইয়র্ক টাইমসসহ ৫ সম্পাদকের

উইকিলিকসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছেন বিশ্বের প্রধান পাঁচ সংবাদমাধ্যমের সম্পাদক। তাদের দাবি, জুলিয়ান অ্যসাঞ্জকে কারান্তরীণ রাখা সংবাদপত্রের স্বাধীনতাকে ক্ষুণ্ন করছে।

ঠিক বারো বছর আগে দ্য গার্ডিয়ান, নিউ ইয়র্ক টাইমস, লে মন্ডে, ডের স্পিগেল এবং এল পাইস উইকিলিকস প্রকাশিত ‘কেবলগেট’ থেকে প্রাপ্ত তথ্য নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে। এর মূল কারিগর ছিলেন জ্রুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। তিনি প্রায় আড়াই লাখ নথি ফাঁস করেন। উইকিলিকসের ফাঁস হওয়া তথ্য বিশ্বজুড়ে মার্কিন কূটনীতির অভ্যন্তরীণ কৌশলকে উন্মোচিত করে।

তথ্য ফাঁস হওয়ার বছরেই গ্রেপ্তার হন অ্যাসাঞ্জ। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের গুপ্তচরদের বিচার করার জন্য তৈরি আইনের অধীনে অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনার পরিকল্পনার বিরোধিতা করেন এ পাঁচ সম্পাদক।

এক চিঠিতে তারা বলেন, ‘তথ্য প্রকাশ করা কোনো অপরাধ নয়’।

২০১৯ সালে লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে অ্যাসাঞ্জকে দক্ষিণ লন্ডনের বেলমার্শ কারাগারে বন্দী করে রাখা হয়। তৎকালীন যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব প্রীতি প্যাটেল জুন মাসে অ্যাসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যর্পণের অনুমোদন দেন। তার আইনজীবীরা এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করছেন।

বারাক ওবামার নেতৃত্বে, মার্কিন সরকার ইঙ্গিত দিয়েছিল যে ২০১০ সালে তথ্য ফাঁসের জন্য অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে মামলা করবে না। বর্তমানে সংবাদমাধ্যমগুলো যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি জো বাইডেনের প্রশাসনের কাছে আবেদন করছে অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রত্যাহারের।

চিঠিতে বলা হয়, প্রকাশ করা অপরাধ নয়: মার্কিন সরকারের উচিত গোপনিয়তা প্রকাশের জন্য জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিচার প্রত্যাহার করা।

বারো বছর আগে, ২৮ নভেম্বর ২০১০-এ, আমাদের পাঁচটি আন্তর্জাতিক মিডিয়া আউটলেট- নিউ ইয়র্ক টাইমস, দ্য গার্ডিয়ান, লে মন্ডে, এল পাইস এবং ডের স্পিগেল – উইকিলিকসের সহযোগিতায় একটি ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ প্রকাশ করে যা বিশ্বজুড়ে শিরোনাম হয়।

‘কেবলগেট’ নামে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের ২৫১০০০টি গোপনীয় তথ্য আন্তর্জাতিক স্তরে দুর্নীতি, কূটনৈতিক কেলেঙ্কারি এবং গুপ্তচর বিষয়ক ঘটনা প্রকাশ করে।

নিউইয়র্ক টাইমসের কথায়, নথিগুলি ‘সরকার কীভাবে বড় বড় সিদ্ধান্ত নেয়, যেসব সিদ্ধান্ত দেশের জীবন এবং অর্থের ক্ষতি করে।’

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please, Deactivate The Adblock Extension